১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাগরিকার উইকেটে রান তোলা কঠিন

  • প্রোটিয়াদের দ্রুতই গুটিয়ে দেয়া মূল উদ্দেশ্য আজ, প্রথম হাফসেঞ্চুরি করে সন্তুষ্ট লিটন দাস

স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে ॥ ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্টে এক ইনিংস ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছিলেন। গত মাসে ভারতের বিপক্ষে ফতুল্লা টেস্টে ৪৫ বলে ৪৪ রানের প্রশংসনীয় একটি ইনিংস খেলেছিলেন। তখনই বোঝা গিয়েছিল দারুণ কিছু করার সামর্থ্য আছে এ তরুণ উদীয়মান উইকেটরক্ষকের। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টে নেমেই প্রমাণ দিলেন সেটার। করলেন প্রথম অর্ধশতক। সেটা দলের জন্য ভূমিকা রেখেছে তাতেই খুশি ২০ বছর বয়সী দিনাজপুরের ক্রিকেটার লিটন দাস। তার কার্যকরী অর্ধশতকের জন্যই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে লিড নিয়ে শেষ করেছে বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে দারুণ ব্যাট করে প্রোটিয়ারা ব্যবধান কমিয়ে এনে পিছিয়ে ১৭ রানে। লিটন জানালেন বাংলাদেশের লক্ষ্য দ্রুতই দক্ষিণ আফ্রিকাকে অলআউট করে দেয়া। তার দাবি জয়ের লক্ষ্য ১৫০ থেকে ২০০ রানের মধ্যে থাকলে সেটা বাংলাদেশের জন্য সহজ হবে। উইকেটে রান করা কঠিন তাই বোলারদের ভাল বোলিংয়ের আহ্বান জানালেন তিনি। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন লিটন।

সুযোগটা তিনি এবারই প্রথম পেলেন। নিয়মিত উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহীম দলের অধিনায়ক ও অপরিহার্য ব্যাটসম্যান এবং ওপেনাররা বর্তমানে দারুণ ফর্মে আছে বাংলাদেশের। তাই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে থাকলেও খেলার সুযোগ হচ্ছিল না লিটনের। তবে মুশফিকের হাতের ইনজুরি তাকে সুযোগ করে দেয় ভারতের বিপক্ষে অভিষেকের। ৪৪ রানের ক্ষুদ্র ইনিংস খেললেও ইতবাচক মনোভাবের কারণে এবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে উইকেটরক্ষক হিসেবে দলে থেকে গেছেন। এবার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়েই কাজে লাগিয়ে করেছেন ফিফটি। এ বিষয়ে লিটন বলেন, ‘আমার লক্ষ্য আরেকটু বড় ছিল। ওই সময় স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কেবল আমিই ছিলাম। এরপর যারা ছিল সবাই লোয়ার অর্ডারের ব্যাটসম্যান। যতটুকু খেলেছি, খুব ভাল একটা ইনিংস ছিল আমার। আমার লক্ষ্য ছিল বোলারদের নিয়ে যত বল খেলা যায়। আসলে এভাবে চিন্তা করে ক্রিকেট হয় না। আমি যখন কিপিং করি, আমার কাজ হচ্ছে কিপিং করা। যখন ব্যাটিংয়ে নামি, ব্যাটিং করা। আমি শতভাগ দেয়ার চেষ্টা করি। যতটুকু খেলেছি, দলের জন্য খেলার চেষ্টা করেছি। আমি মনে করি, ৫০ রানের দলের জন্য সহায়ক।’

হ্যাঁ অবশ্যই দলের জন্য এদিন দারুণ কার্যকরী একটি ইনিংস খেলেছেন লিটন। প্রথম ইনিংস বাংলাদেশ শেষ করেছিল ৩২৬ রানে, লিড ছিল ৭৮। তৃতীয় দিনশেষে এখনও ১৭ রানে এগিয়ে টাইগাররা। এ বিষয়ে লিটন বলেন, ‘উইকেট শট খেলার জন্য ছিল না। তাই সতর্ক হয়ে খেলতে হয়েছে।’ সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ষষ্ঠ উইকেটে ৮২ রানের জুটিই লিড এনে দেয় বাংলাদেশকে। সেটি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ষষ্ঠ উইকেটে বাংলাদেশের সেরা জুটি। এ বিষয়ে লিটন বলেন, ‘আরেকটু হলে হয় তো ভাল হতো। যেটুকু হয়েছে সেটাও যথেষ্ট ভাল। আমরা ৭৮ রানের লিড পেয়েছিলাম।’ তবে এখন প্রতিপক্ষকে দ্রুত অলআউট করে দিতে না পারলে এ অর্জনটা সুখকর থাকবে না। এ বিষয়ে লিটন বলেন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে, আমাদের বোলিং খুব ভাল করতে হবে। আমরা এখনও কিছু রানে এগিয়ে আছি। এটা আমাদের জন্য একটা প্লাস পয়েন্ট। আমরা যত কমে পারি আটকে রাখত চাইব। উইকেটে রান করা অনেক কঠিন। লক্ষ্য যদি ১৫০-২০০ রানে রাখতে পারি আমাদের জন্য ভাল হবে। আমাদের বোলারদের জন্য পরামর্শ থাকবে, উইকেট-টু-উইকেট বল করার। উইকেটে সহায়তা আছে।’ লিটন মনে করেন এখনও চলতি টেস্টে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এখনও আমরা এগিয়ে। উইকেটটা একটু কঠিন রান করার জন্য। আমরা যদি আজ শুরুতে ২-৩টা উইকেট ফেলে দিতে পারতাম আমাদের জন্য ভাল হতো। তা হয়নি, কিন্তু তারপরও আমরা এগিয়ে আছি।’