১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রকে বিমান ঘাঁটি ব্যবহার করতে দেবে

  • আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই

তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রকে সিরীয় সীমান্তের কাছে তাদের একটি প্রধান সামরিক ঘাঁটি থেকে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) চরমপন্থী গোষ্ঠীর ওপর বিমান হামলা চালাতে দেবে। মার্কিন কর্মকর্তারা এ কথা বলেন। কয়েক মাসব্যাপী আলোচনার পর এ ব্যাপারে মতৈক্য হয়েছে। তবে আঙ্কারা এখন পর্যন্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। খবর বিবিসি অনলাইনের।

তুরস্ক সিরিয়া সীমান্তের কাছে তুর্কী সেনাবাহিনী ও আইএস যোদ্ধাদের মধ্যে গুলিবিনিময়ের ঘটনার পর এই ঐকমত্য প্রতিষ্ঠিত হয়। ঘটনায় একজন সৈন্য নিহত ও দু’জন আহত হয়। সোমবার সিরীয় সীমান্তবর্তী একটি তুর্কী শহরে এক আত্মঘাতী হামলায় ৩২ জন নিহত হয়। বুধবার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও তাঁর তুর্কী প্রতিপক্ষ রিসেপ তাইপ এরদোগানের মধ্যে একটি ফোনালাপের মাধ্যমে এ বিষয়ে সমঝোতা হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন কর্মকর্তারা সমঝোতার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ইনসিরলিক বিমান ঘাঁটি ব্যবহার আইএসের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সক্ষমতাকে আরও প্রসারিত করবে। একজন মার্কিন কর্মকর্তা নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেন, এই সমঝোতা লড়াইয়ের ‘মোড় ঘুরিয়ে দেবে।’ এক সময় ইরাকী নেতা সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনায় এই ঘাঁটিকে ব্যবহার করা হতো। সিরিয়ার সঙ্গে তুরস্কের দীর্ঘ সীমান্তের কাছে অবস্থিত বিমান ঘাঁটিটি আইএসের শক্ত ঘাঁটি রাক্কার দূরত্ব অনেকটা কমিয়ে দেবে। বিবিসির গুনে ইলদিজ এক বিশ্লেষণে বলেন, এই সমঝোতা যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন আইএসবিরোধী জোটকে ভৌগোলিক নৈকট্যের বাইরেও সুবিধা এনে দেবে। তুরস্ক জোটে শুরু থেকে থাকলেও সিরিয়া সঙ্কট প্রশ্নে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গির কারণে পরিপূর্ণভাবে সহযোগিতা করছিল না।

তুর্কী সরকার যুক্তি দেখিয়েছিল যে, আইএসের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর চেয়ে আন্তর্জাতিক জোটের প্রথম অগ্রাধিকার হওয়া উচিত প্রেসিডেন্ট আসাদকে উৎখাত করা। এখন জোটের প্রতি তুর্কী সরকারের সুস্পষ্ট সমর্থন আইএসের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত শক্তি জোগাবে। এ বছরের প্রথম দিকে আইএস যোদ্ধাদের সীমান্ত অতিক্রমের সুযোগ দিয়ে সঙ্কটকে না দেখার ভান করার জন্য তুর্কী সরকারকে দোষারোপ করা হতো। বিমান ঘাঁটিটি উন্মুক্ত করার জন্য দেশটির ওপর ব্যাপক আন্তর্জাতিক চাপ ছিল।

তুর্কী ও কুর্দি লক্ষ্যবস্তুর বিরুদ্ধে আইএসের সাম্প্রতিক হামলা বিষয়টি জরুরিভাবে বিবেচনা করার আবশ্যকতা সৃষ্টি করায় যুক্তরাষ্ট্র ও তুর্কী সরকারের মধ্যে আলোচনায় সাফল্য এসেছে। হোয়াইট হাউস এখন পর্যন্ত এই মতৈক্যের ব্যাপারে কোন মন্তব্য না করলেও মুখপাত্র জোস আর্নেস্ট বলেন, ওবামা ও এরদোগান তাদের মধ্যে কথোপকথনে ‘আমাদের সহযোগিতাকে গভীরতর’ করতে সম্মত হয়েছেন।

এই সমঝোতা আইএসবিরোধী অভিযানে তুরস্কের জড়িত হওয়াকে জোরদার করবে। আইএসবিরোধী লড়াইয়ে আন্তর্জাতিক জোটের অংশ হওয়া সত্ত্বেও চরমপন্থী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যথেষ্ট ব্যবস্থা গ্রহণ না করার জন্য দেশে-বিদেশে আঙ্কারা সমালোচনার সম্মুখীন।