১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বে বেলাভিস্তায় চলছে সফদার হোসেনের একক আলোকচিত্র প্রদর্শনী

  • বক্স ক্যামেরার আবেদন আজও ফুরায়নি

গৌতম পাণ্ডে ॥ ‘ভাই আসুন, মাত্র ১০ মিনিটে আপনার ছবি তোলা হবে। আপনার প্রয়োজনীয় ছবিটি এই মুহূর্তে সংগ্রহ করুন’ এ কথগুলো খুবই পরিচিত পঞ্চাশের দশকের মানুষের কাছে। যারা এখনও জীবিত আছেন তাঁরা কোন এক সময়ে শুনতে অভ্যস্ত ছিলেন রাজধানীর গুলিস্তানের মোড় কিংবা জজ কোর্টের সামনে এ কথাগুলো। এখনও গুলিস্তানের ফ্লাইওভারের ডান পাশে গিয়ে যদি কাউকে জিজ্ঞাসা করা হয়, এখানে বক্স ক্যামেরায় ছবি তোলা হয় কোথায়? সবাই এক বাক্যে মোহাম্মদ সফদারের বসার স্থানটিকে দেখিয়ে দেবেন। ব্যস্ত এই নগরীতে এখনও নিরলস ছবি তুলে চলেছেন পুরান ঢাকার বাসিন্দা সফদার, যিনি সফদার ভাই বলে বেশি পরিচিত। প্রযুক্তির অগ্রগতিতে এখন ডিজিটাল ক্যামেরায় ছবি তোলা হচ্ছে অহরহ। কিন্তু প্রবীণ এই আলোকচিত্রী নির্দ্বিধায় তাঁর পেশাকে কাজে লাগিয়ে চলেছেন। তাঁর ধারণা যতই প্রযুক্তির উন্নতি হোক না কেন, কোন না কোনভাবে অনেকেরই ছবি তুলতে আসতে হবে তার কাছে। কেননা পুরনো ছবি তাঁর কাছেই পাওয়া যাবে। রাজধানীর বনানীতে চলছে প্রবীণ এই আলোকচিত্রী মোহাম্মদ সফদারের বক্স ক্যামেরায় তোলা ছবি নিয়ে প্রদর্শনী। ‘সফটওয়ার দ্য ম্যান বিহাইন্ড দ্য বক্স ক্যামেরা ‘শীর্ষক এ প্রদর্শনীর সম্পাদনা করেছেন সুমন আহমেদ ও শেহ্জাদ চৌধুরী। লঙ্গিটিউড ল্যাটিটিউড সিক্স’ শীর্ষক চার মাসব্যাপী শিল্প প্রদর্শনীর অংশ হিসেবে বে ডেভেলপমেন্টের নতুন গ্যালারি বে বেলাভিস্তায় পক্ষকালব্যাপী এ প্রদর্শনীর আয়োজন। ‘লঙ্গিট্যুড ল্যাটিট্যুড’-এমন একটা শিল্প প্রদর্শনী যা প্রতিবারই ভিন্ন ভিন্ন ভেন্যুতে আয়োজিত হয়। এই প্রদর্শনীর মূল ভাবনা হলো ‘যে কোন জায়গাই শিল্প প্রদর্শন কিংবা উপভোগের জন্য একটি ভাল জায়গা হতে পারে। ২০০৩ সাল থেকে কিউরেটর শেহ্জাদ চৌধুরী এবং তার সহযোগীরা মিলে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে আসছে। এর আগে রাজধানীর বিভিন্ন গ্যালারিতে এই ধরনের ৫টি প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। গ্যালারিতে ঢুকেই চোখে পড়বে সারিবদ্ধ বিটু সাইজের একাধিক ছবি। বেশিরভাগ ছবি নারী ও পুরুষের। কোথাও মায়ের সঙ্গে সন্তান আবার কোথাও ভাই-বোনের একত্রে মিলনের মুহূর্ত। কোন কোন ছবিতে তুলির আঁচড়ে রংকরা হয়েছে। প্রতিটি ছবির ওপর ছবিটির নেগেটিভ সংযোজন করা হয়েছে। অধিকাংশ ছবি সফদারের বক্স ক্যামেরায় ১৯৫২ সালে তোলা। গ্যালারির অন্য পাশে সম্প্রতি বক্স ক্যামেরায় তোলা কিছু ছবি স্থান পেয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে গ্লোব, মগ, আনারস, ফুলদানি, ফলের ঝুড়িসহ বেশকিছু ছবি। যেগুলোর সঙ্গে পূর্বের তোলা ছবির পার্থক্য সহজেই অনুমান করা সম্ভব। সময়ের বিবর্তনে তাঁর তোলা ছবিরও যে অগ্রগতি হয়েছে, এটা প্রমাণ করার জন্যই প্রদর্শনীতে সাম্প্রতিক তোলা ছবিগুলোকেও স্থান দেয়া হয়েছে। সফদার বলেন, আমি ১২ বছর বয়স থেকে বক্স ক্যামেরায় ছবি তুলছি। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন আমি নিজের চোখে দেখেছি। আমার বক্স ক্যামেরায় তোলা ছবি নিয়ে ইতিপূর্বে লন্ডন, আমেরিকা, ডেনমার্ক, সুইজারল্যান্ডসহ বেশকিছু দেশে প্রদর্শনী হয়েছে। আমি এখনও ছবি তুলে যাচ্ছি। কারণ, আমার ছবির আবেদন এখনও আছে।