২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কমেছে চাল ও সয়াবিন তেলের

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ঈদের রেশ না কাটতেই অস্থির পেঁয়াজের বাজার। প্রতিকেজি দেশী জাতের পেঁয়াজে ভোক্তাকে গুনতে হচ্ছে ৫০ টাকা। সামনে কোরবানি ঈদ, সেই সময় মসলা জাতীয় পণ্যের চাহিদা বাড়বে অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। এ অবস্থায় এখনই বেড়ে যাচ্ছে পেঁয়াজের দাম। এক সপ্তাহ ব্যবধানে প্রতিকেজিতে দাম বেড়েছে ৫ থেকে ৮ টাকা পর্যন্ত। মূলত ভারত পেঁয়াজের রফতানিমূল্য দ্বিগুণ করার পর থেকেই এই পণ্যটির দাম বেড়ে যাচ্ছিল। তবে ঈদের সময় সরবরাহ ভাল থাকায় অনেকটা ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজ পান ক্রেতারা।

এছাড়া নিত্যপণ্যের বাজারে চালের দাম কমতির দিকে। আগের বাড়তি দামে ১৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে মসুর ডাল। আটা ও চিনির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। কমেছে খোলা সয়াবিন তেলের দাম। এছাড়া ডিম, মাছ, মাংস ও শাক-সবজি বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে। কমে গেছে আদা ও কাঁচা মরিচের দাম। প্রতিকেজি মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকায়। ঈদের আগে এ মরিচ ১৬০-১৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। শুক্রবার রাজধানীর কাপ্তান বাজার, কাওরান বাজার ও ফকিরাপুল বাজার ঘুরে নিত্যপণ্যের দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় ছুটির দিনে বাজার করতে এসে ক্রেতারা বিরক্তও হয়েছেন। ঈদের পর কেন পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেল জানতে চাইলে কাওরান বাজারে পেঁয়াজ বিক্রেতা জামাল হোসেন জনকণ্ঠকে বলেন, মোকামে আমদানি কম। একারণে দাম বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, আমদানিকৃত পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়লে দাম কিছুটা কমতে পারে। তবে কোরবানি সামনে রেখে আমদানিকারক ও পাইকারি বিক্রেতারা যাতে পণ্যটির মজুদ না বাড়াতে পারে সেদিকে মনিটরিং বৃদ্ধি করতে হবে।