১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ছাত্রলীগ সম্মেলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতাদের বৈঠক

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ছাত্রলীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে শনিবার রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতা। বৈঠকে বর্তমান ছাত্রলীগ সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমসহ সাবেক ছাত্রনেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক শুধুমাত্র আজ সকালে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠেয় ছাত্রলীগের দু’দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় সম্মেলনের দাওয়াত দিতেই গণভবনে গিয়েছিলেন এমন দাবি করলেও একাধিক সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে নতুন নেতৃত্ব গঠন প্রক্রিয়া এবং নতুন নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট বয়সসীমা কী হবে, এ নিয়েও তাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। বিভিন্ন সূত্রে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার অভিযোগও দৃষ্টি এড়ায়নি দলটির হাইকমান্ডের। এ ক্ষেত্রে নতুন কমিটিতে কারা আসবে, সমঝোতা নাকি নির্বাচন, তা আজ সম্মেলনের আগেই প্রধানমন্ত্রী তাঁর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন, এমনটিই আভাস দিয়েছেন বৈঠকে উপস্থিত নেতারা।

জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত সমঝোতা না হলে গতানুতিক ধারায় ভোটের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব গঠিত হবে কিনা, এমন প্রশ্ন সামনে এলে বৈঠকে উপস্থিত নেতারা এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ভার সংগঠনের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনার ওপরই অর্পণ করেন। তবে বৈঠকে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত না জানিয়ে সবার বক্তব্য মনোযোগসহকারে শোনেন প্রধানমন্ত্রী। আজ শনিবার সম্মেলন শুরুর আগেই প্রধানমন্ত্রী দলের অন্যান্য নেতার সঙ্গে পরামর্শ করেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন বলেই বৈঠকে উপস্থিত সূত্রগুলো জানায়।

সূত্র জানায়, বৈঠকে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা পরবর্তী কমিটি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অভিপ্রায় ও সিদ্ধান্ত জানতে চাইলে শেখ হাসিনা শুধু এটুকু জানান, সংগঠনের প্রতি বিশ্বস্ত, মেধাবী এবং ক্লিন ইমেজের ছাত্রলীগ নেতাদেরই বড় পদে আসা উচিত। বৈঠকে উপস্থিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফসহ ছাত্রলীগের দীর্ঘ সময়ে নেতৃত্ব দেয়া একাধিক নেতা বৈঠকে উপস্থিত থাকলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সঠিক কী সিদ্ধান্ত দিয়েছে তা কেউই আনুষ্ঠানিকভাবে মুখ খুলতে রাজি হননি। তবে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে তাঁকে ছাড়াও দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফকে দাওয়াত দেয়ার নির্দেশ দিলে তাৎক্ষণিক উপস্থিত নেতারা জানান, ইতোমধ্যেই তাঁকে দাওয়াত এবং প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা নেয়া হয়েছে।