১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে ॥ রিপন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটেছে অভিযোগ করে বিএনপির মুখপাত্র ও দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, পঁচাত্তরপূর্ব পরিস্থিতিতে যেভাবে গ্রামেগঞ্জে ডাকাতি হতো এখন সেভাবে ডাকাতি হচ্ছে। এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। শুক্রবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ছাত্রলীগের সম্মেলনে ছাত্রদলকে আমন্ত্রণ জানানো দেশে রাজনীতির জন্য ইতিবাচক ও আশা জাগানিয়া। ছাত্রলীগের সম্মেলনে ছাত্রদল যাওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। তার আগে ছাত্রদলের সভাপতিকে মুক্তি দিতে হবে। রাজনীতিতে সকলেই আশা নিয়ে থাকি। আশা করব সরকার বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলায় হয়রানি করা থেকে বিরত থাকবে।

ছাত্রলীগের সম্মেলনে ছাত্রদলের নিমন্ত্রণকে স্বাগত জানিয়ে রিপন বলেন, এটা নিশ্চয়ই আওয়ামী লীগের গোচরে রয়েছে। এখন ছাত্রলীগের এ ছোট উদ্যোগকে আওয়ামী লীগ যদি আন্তরিকভাবে দেখে তাহলে দেশে রাজনীতির নতুন দিগন্তের সূচনা হবে। তিনি বলেন, ছাত্রদল নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা-হামলার জন্য তারা অনেকে প্রকাশ্যে আসতে পারে না। এ জন্য সরকারই দায়ী।

রিপন বলেন, দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির খুবই খারাপ দশা। গ্রামেগঞ্জে ডাকাতি মহামারী আকারে চলছে। এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে এবং মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক করতেই বিএনপি বিষয়টিকে তুলে ধরেছে।

রিপন বলেন, দেশে দুই ধরনের আইন প্রচলিত আছে। সরকারী দলের জন্য এক ব্যবস্থা আর বিরোধী দলের জন্য আরেক ব্যবস্থা। দেশের কোথাও জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নেই। সরকার নির্বাচিত না হলেও তাদের কথায় বন্দুক চলে। তাই জনগণের নিরাপত্তা দেয়া তাদের দায়িত্ব। সরকার জনগণের জানমালের দিকে খেয়াল করছে না। তাদের খেয়াল কী করে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা-হামলা দিয়ে হয়রানি করা যায়। জনগণের কথা, দেশের কথা চিন্তা করলে তারা রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করত। বেহাল সড়কের দিকে খেয়াল করত। সড়ক দুর্ঘটনা শূন্যের কোটায় নিয়ে আসত। অথচ এসবের দিকে সরকারের কোন খেয়াল নেই।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির সমালোচনা করে রিপন বলেন, দেশে এখন ৭৫ পূর্ববর্তী অবস্থা বিরাজ করছে। ওই সময়ের মতো ফরিদপুর ও উত্তরাঞ্চলে ডাকাতি বেড়ে গেছে। ডাকাতির সময় নারীদের সম্ভ্রমহানির ঘটনাও ঘটছে। তিনি বলেন, প্রতিদিন ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রাণহানি সরকার ও সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর চরম ব্যর্থতা হিসেবে দেখছে বিএনপি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিক শিকদার প্রমুখ।