১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাইট শেয়ার ইস্যু করবে ৫ কোম্পানি

  • কমিশনে আবেদন জমা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পাঁচটি কোম্পানি রাইট (অগ্রাধিকারমূলক) শেয়ার ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ উদ্দেশ্যে কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আবেদন করেছে। এ আবেদনের আগে বিশেষ সাধারণ সভায় বিনিয়োগকারীদের অনুমোদন নেয়া হয়েছে। বিএসইসি ও কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিগুলো হলো- প্রকৌশল খাতের জিপিএইচ ইস্পাত ও বাংলাদেশ থাই এ্যালুমিনিয়াম (বিডি থাই), আর্থিক খাতের আইডিএলসি ফিন্যান্স, সেবা ও আবাসন খাতের সামিট এ্যালায়েন্স পোর্ট এবং খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের বঙ্গজ লিমিটেড।

জিপিএইচ ইস্পাত ॥ জিপিএইচ ইস্পাত বিদ্যমান একটি শেয়ারের বিপরীতে একটি করে রাইট শেয়ার ইস্যুর প্রস্তাব করেছে। কোম্পানিটি মোট ১২ কোটি ৪৭ লাখ ৪০ হাজার শেয়ার ইস্যু করবে। প্রতিটি রাইট শেয়ারের জন্য কোম্পানিটি ১০ টাকা প্রিমিয়ামসহ ২০ টাকা করে নেবে। বিএসইসির অনুমোদন পেলে কোম্পানিটি বাজার থেকে ২৯৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা তুলবে। ইস্যু-ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে লঙ্কাবাংলা ইনভেস্টমেন্ট। সহ-ইসু্যূ ম্যানেজার হিসেবে আছে বানকো ফিন্যান্স এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। রাইটের বিষয়ে জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, রাইট শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ কোম্পানির উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ব্যয় করা হবে।

বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি বছরে ১ লাখ ৬৮ হাজার মেট্রিক টন বিলেট উৎপাদন করতে পারে। আর রড উৎপাদন ক্ষমতা ১ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন। কারখানা সম্প্রসারণের পর বিলেট ও এম এস রডের উৎপাদন ক্ষমতা ১০ লাখ ৮ হাজার মেট্রিক টনে উন্নীত হবে। আর সেকশান প্রোডাক্ট এর বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা দাঁড়াবে ৭ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন।

বিডি থাই ॥ প্রকৌশল খাতের আরেক কোম্পানি বিডি থাই এ্যালুমিনিয়াম অভিহিত মূল্যে রাইট শেয়ার ইস্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিডি থাই (১আর:১) হারে অর্থাৎ ১টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১টি রাইট শেয়ার ইস্যু করবে। এর মাধ্যমে কোম্পানিটি বাজার থেকে ৫২ কোটি ৩৩ লাখ ৫০ হাজার ২৮০ টাকা তুলতে চায়। বিডি থাইয়ের ইস্যু-ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে সিটিজেন সিকিউরিটিজ এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট।

আইডিএলসি ফিন্যান্স ॥ আর্থিক খাতের প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেড ১আর:২ হারে (বিদ্যমান ২টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১টি রাইট শেয়ার) রাইট শেয়ার ছাড়বে। ১০ টাকা ফেসভ্যালুর সঙ্গে ১০ টাকা প্রিমিয়াম চায় কোম্পানিটি। এর মাধ্যমে বাজার থেকে আইডিএলসি ২৫১ কোটি ৩৬ লাখ ৭১ হাজার ৮৭০ টাকা তুলতে চায়। এর ইস্যু-ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে সিটি ক্যাপিটাল। সহযোগী হিসেবে আছে এএএ ফিন্যান্স এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

সামিট অ্যলায়েন্স পোর্ট ॥ এদিকে সেবা ও আবাসন খাতের কোম্পানি সামিট এ্যালায়েন্স পোর্ট ১৫ টাকা দরে। অর্থাৎ রাইট শেয়ারে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ৫ টাকা করে প্রিমিয়াম নেয়া হবে। কোম্পানিটি ১আর:৫ হারে রাইট শেয়ার ইস্যু করবে। অর্থাৎ ৫টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১টি রাইট শেয়ার ইস্যু করা যাবে।

জানা গেছে, কোম্পানিটি মুঞ্জীগঞ্জে একটি পোর্ট করবে। এ পোর্টের জন্য ব্যয় হবে প্রায় ৪৫০ কোটি টাকার মতো। এ পোর্টের জন্য কোম্পানিটি বিদেশ থেকে ঋণ গ্রহণ করবে। প্রাথমিক ব্যয় মিটানোর জন্য তারা রাইট ছেড়ে বাজার থেকে কিছু টাকা তুলবে।

বর্তমানে কোম্পানিটির ১৬ কোটি ৩৫ লাখ ৮৩ হাজার ১৭২টি শেয়ার রয়েছে। ৫টি শেয়ারের বিপরীতে একটি রাইট দিলে নতুন শেয়ারের সংখ্যা হবে ৩ কোটি ২৭ লাখ ১৬ হাজার ৬৩৪টি। প্রিমিয়ামসহ ১৫ টাকা অফার প্রাইস নির্ধারণ করেছে পরিচালনা পর্ষদ। এ হিসাবে কোম্পানিটি বাজার থেকে ৪৯ কোটি ৭ লাখ ৪৯ হাজার ৫১০ টাকা তুলতে চায়।

বঙ্গজ ॥ খাদ্য খাতের কোম্পানি বঙ্গজ লিমিটেড ৩আর:১ অর্থাৎ ১ শেয়ারের বিপরীতে ৩টি শেয়ার ছাড়বে কোম্পানিটি। তবে এতে কোন প্রিমিয়াম থাকবে না। এর মাধ্যমে কোম্পানিটি বাজার থেকে ১৬ কোটি ৪৭ লাখ ২৩ হাজার ৬৪০ টাকা তুলতে পারবে। তবে সব কিছু নির্ভর করছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির ওপর। সংস্থাটি সব কিছু যাচাই-বাছাই করে রাইটের অনুমোদন দিবে।

এ বিষয়ে বিএসইসির উর্ধতন কর্মকর্তা বলেন, আমাদের কাছে কয়েক কোম্পানি রাইটের জন্য আবেদন করেছে। আমরা এগুলো নিয়ে কাজ করছি। সব দিক বিবেচনা করে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের কথা বিবেচনায় নিয়ে আমরা রাইটগুলোর অনুমোদন দিব। তিনি বলেন, যদি দেখি রাইট দিলে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে আঘাত হানে এবং কোম্পানির রাইট পাওয়ার যোগ্য না হয়, তাহলে বিএসইসি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে।