২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতের পেঁয়াজের বাজারে আগুন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আগুন লেগেছে ভারতের পেঁয়াজের বাজারে। এশিয়ার বৃহত্তম পেঁয়াজের পাইকারি বাজার মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁওতে গত এক মাসে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৭০ শতাংশ।

শনিবার ভারতের সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত দুই দশকে পাইকারি বাজারে সবচেয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে চলতি মাসে। সাধারণত, সরবরাহ কম থাকায় জুলাই মাসে পেঁয়াজের দাম একটু বাড়ে। বর্ষার কারণে জুলাইতে পেঁয়াজের গুণগত মানেও প্রভাব পড়ে। তবে, খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দামের বৃদ্ধির হার পাইকারি দরের তুলনায় অনেক বেশি।

গত শুক্রবার লাসালগাঁও বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রয়মূল্য ছিল ২৫ দশমিক ৫০ রুপি। একই পেঁয়াজ দেশের খুচরা বাজারে ৩৫ থেকে ৪০ রুপীতে বিক্রি হয়েছে।

ভারতের অভ্যন্তরে পেঁয়াজের দাম কমাতে গত ২৭ জুন কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজের ন্যূনতম রফতানি মূল্য বাড়িয়ে দেয়। তা সত্ত্বেও দেশটির পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম ৭০ শতাংশ বেড়েছে। এর প্রভাবে আগামী কয়েক সপ্তাহে দেশটিতে খাদ্যপণ্যের দাম আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। ভারতের ন্যাশনাল হর্টিকালচার রিসার্চ এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের তথ্য অনুযায়ী, গত জুন মাসে লাসালগাঁওয়ের পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের বিক্রয়মূল্য ছিল ১৫ রুপী। এই সংস্থাটি জানিয়েছে, বর্ষায় উৎপাদনের গুণগত মান বজায় রাখা সম্ভব হয় না এবং গুদামজাত অবস্থায় অনেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে এর দাম বাড়ে।

পেঁয়াজের দাম আরও বাড়ার আশঙ্কায় পেঁয়াজের ন্যূনতম রফতানি মূল্য বাড়িয়ে প্রতি টন ৪২৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করেছে কেন্দ্র সরকার। একই সঙ্গে বেআইনী মজুতের ওপরও এক বছরের নিষেধাজ্ঞা বাড়ানো হয়েছে। দাম কমানোর জন্য পেঁয়াজ আমদানির বিষয়েও চিন্তা করছে ভারত। বিশেষজ্ঞদের মতে, বাজারে নতুন পেঁয়াজ না আসা পর্যন্ত দাম খুব একটা কমবে না। আর সে জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত।