২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আয়কর বিবরণীতে বাড়ি ভাড়ার তথ্য প্রদান বাধ্যতামূলক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ করদাতাকে চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ব্যক্তিশ্রেণীর আয়কর বিবরণী দাখিলের সঙ্গে বাড়ি ভাড়ার তথ্য (বাড়ি ভাড়ার ব্যাংক সংক্রান্ত হিসাবের কপি) ও ভাড়ার বিবরণ বাধ্যতামূলকভাবে জমা দিতে হবে। বিবরণীর তথ্যে গরমিল, ভুল বা তথ্য গোপন করা হলে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সূত্র বলছে, আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ীই করদাতাকে এ নির্দেশনা মানতে হবে। আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪-এর ধারা ৩৫ সংশোধন করে ৮ নম্বর বিধি অনুযায়ী ২০১৪ সালের ২২ জুলাই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড একটি নির্দেশনা জারি করে, এ নির্দেশনা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

নির্দেশনায় বলা হয়, ‘বাড়ি ভাড়া জমা করা সংক্রান্ত ব্যাংক হিসাবের তথ্য সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনারকে অবহিত করতে হবে। আয়কর বিবরণী দাখিলের সময় বিবরণীর সঙ্গে বাড়ি ভাড়া সংক্রান্ত ব্যাংক হিসাব বিবরণীর অনুলিপি অবশ্যই দাখিল করতে হবে।’ নির্দেশনা অনুয়াযী, বাণিজ্যিক বা আবাসিক বাড়ি ভাড়া মাসিক ২৫ হাজার টাকা হলে সে হিসাব যে কোন তফসিলী ব্যাংকে পরিচালনা করতে হবে। আইন অমান্য করলে মোট আয়ের ৫০ শতাংশ জরিমানা ও শাস্তির বিধান রয়েছে। বাড়ি ভাড়া সংক্রান্ত করাঞ্চলের একজন সহকারী কর কমিশনার বলেন, জরিপে পাওয়া সব বাড়ি মালিকের তথ্য আমাদের কাছে রয়েছে। এসব বাড়ির মালিক আয়কর বিবরণীতে বাড়ি ভাড়ার বিষয় উল্লেখ ও বাড়ি ভাড়ার ব্যাংক লেনদেন সংক্রান্ত কপি জমা না দিলে কঠিন শাস্তি পেতে হবে।

ওয়ালমার্টকে পেছনে ফেলল অ্যামাজন

তাক লাগানো মুনাফা এবং প্রত্যাশা ছাপিয়ে ২০ শতাংশ আয় বৃদ্ধি। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের এই আর্থিক ফল প্রকাশের পরই গত শুক্রবার ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজনের শেয়ার দর এক লাফে বাড়ল ১৫ শতাংশ। এর ফলে বাজারে শেয়ার মূল্যের নিরিখে বিশ্বের বৃহত্তম খুচরো বিক্রেতা আমেরিকার ওয়ালমার্টকে পেছনে ফেলে দিল সে দেশেরই এই নেটে কেনাকাটার সংস্থাটি। তাদের বাজার মূল্য এখন ২৫,৯১০ কোটি ডলার (১৬,৭১,১৯৫ কোটি টাকা)। যেখানে ওয়ালমার্ট ২৩,১৭০ কোটি ডলার (১৪,৯৪,৪৬৫ কোটি টাকা)। দুনিয়াজুড়ে খুচরো কেনাকাটার বাজার কী ভাবে নেট নির্ভর হয়ে পড়ছে, অ্যামাজনের ওয়ালমার্টকে ছাপানো তারই প্রতীক। - অর্থনৈতিক রিপোর্টার

২০১ তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যে আমদানি শুল্ক থাকছে না

কম্পিউটার থেকে টাচ স্ক্রিন ফোন, ভিডিও গেমের যন্ত্রাংশ থেকে এমআরআই মেশিন- এসব পণ্যের আমদানি শুল্ক পুরোপুরি তুলে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও)। এ লক্ষ্যে গত শুক্রবার এ রকম ২০১টি তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যের তালিকা চূড়ান্ত করেছে। এ বিষয়ে একমতও হয়েছে প্রধান তথ্যপ্রযুক্তি সামগ্রী রফতানিকারক দেশগুলো। তবে বিষয়টি কার্যকর করতে এখন সব সদস্য রাষ্ট্রের সমর্থন পাওয়ার অপেক্ষা। উল্লেখ্য, শেষ পর্যন্ত এ বিষয়ে ডব্লিউটিওর সব সদস্যের সমর্থন মিললে ১৮ বছরের মধ্যে এটাই হবে বিশ্বজুড়ে মুক্ত বাণিজ্য ও আমদানি শুল্ক ছাড়ের প্রথম চুক্তি। খুলে যাবে ১.৩ লাখ কোটি ডলারের বাজার। তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যগুলো অন্য দেশের থেকে কিনতে গাঁটের কড়ি খরচ করতে হবে কম। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার