১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফুলছড়ির পাগলার চরে নদীভাঙন

ফুলছড়ির পাগলার চরে নদীভাঙন

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা ॥ রাক্ষুসী ব্রহ্মপুত্রের করাল গ্রাসে বিলীন ফুলছড়ির এরেন্ডাবাড়ি ইউনিয়নের পাগলার চর গ্রাম। হুমকির সম্মুখীন তিনথোপার চর। নদী ভাংগনে বসতভিটা হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে এই গ্রামের ৩শ‘ ৭০ পরিবার। ঈদের সময় ভিজিএফ কার্ডের ১০ কেজি চাল ছাড়া তাদের ভাগ্যে জোটেনি সরকারি-বেসরকারি কোন সাহায্য সহযোগিতা এমনই অভিযোগ ভুক্তভোগিদের।

দেখা গেছে, গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল এরেন্ডাবাড়ি ইউনিয়নের পাগলার চর গ্রামটি ব্রহ্মপুত্রের ক্রমান্বয়ে ভাঙনে গত দুই সপ্তাহ আগে নদীগর্ভে বিলীন হয়। এতে করে ২৫০ পরিবার বসতভিটা হারিয়ে একই ইউনিয়নের বিভিন্ন চরসহ পার্শ্ববর্তি ইউনিয়নে আশ্রয় নেয়। সেইসঙ্গে তিনথোপার চর, সন্যাসীর চর, চর হরিচন্ডি, আনন্দবাড়ি চর, গোপিনাথের চর ও ভাটিয়াপাড়ায় ভাংগন অব্যাহত রয়েছে। তবে তিনথোপার চরটি ব্রহ্মপুত্রের অবিরাম ভাঙনে যে কোন সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে।

গত দুই সপ্তাহে ৬টি গ্রামে ৩শ’ ৭০ পরিবার নদীগর্ভে সর্বস্ব হারিয়ে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নিয়ে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে। রোপনকৃত ধানসহ প্রায় ৩০০ একর আবাদি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়। ভাংগনরত এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে জরুরী সাহায্য হিসাবে ভিজিএফ কাডের ১০ কেজি করে চাল দেয়া হয়। সেই সঙ্গে ২শ’ ৩৮ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের নামের তালিকা ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠানো হয়েছে বলে জানা যায়।