২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জমি দখলমুক্ত করতে না পেরে আদিবাসী মুক্তিযোদ্ধার আত্মহত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল, ২৬ জুলাই ॥ টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার গড়াঞ্চলের আদিবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা বীরেন্দ্র দালবত (৮৯) নিজ ভোগদখলকৃত জমি বর্তমানে দখলমুক্ত করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি উপজেলার ধরাটী কোনাবাড়ী গ্রামের মৃত তনিন্দ্র সাংমার ছেলে। তাঁর গেজেট পরিচিতি নং-৫৯৫৪। রবিবার সকাল ৮টায় পুলিশ তার বসতবাড়ির রান্না ঘরের পেছনের এক লিচু গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে।

জানা গেছে, বৃদ্ধ বয়সে বীরেন্দ্র গড়াঞ্চলের বসতভিটার আশপাশের এক সময়ের নিজ ভোগদখলকৃত জমি বর্তমানে দখলমুক্ত করতে বহুদিন ধরে দ্বারে দ্বারে ধর্না দিচ্ছিলেন। ভূমি অফিস, মধুপুর সহকারী কমিশনারের অফিস ঘুরে তিনি পরিশ্রান্ত হয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। আরও জানা যায়, ভূমি সংক্রান্ত কাজে মাসছয়েক আগে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমির)’ কার্যালয়ের সামনে পড়ে গিয়ে আহত হন। পরে তাঁকে মোটরসাইকেলে করে বাড়িতে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হয়। মধুপুর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার আব্দুর রশিদ তার হতাশার কথা বললেও এ আত্মহত্যাকে রহস্যজনক মনে করছেন।

একটি সূত্র জানায়, তার এক ছেলে জগ¦দীশ ২০০৭ সালে দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হয়। পলাশ নামের অপর এক ছেলে অন্য এক খুনের আসামি হয়ে জেল খাটছে। বীরেন্দ্র দালবতের ছোট ছেলে নবীন নকরেক জানান, কিছুদিন ধরে তার বাবা অন্যরকম আচরণ করছিলেন। রাতে জমিজমা দেখতে বের হতেন। ঘটনার দিন শনিবার রাত ১২টার পরও বাড়িতে না ফেরায় খোঁজাখুঁজি করার পর রাত ৩ টায় রান্না ঘরের পেছনের গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। নিহত মুক্তিযোদ্ধা বীরেন্দ্র দালবত পরিবারে স্ত্রী ও ১০ ছেলে রেখে গেছেন।

এ বিষয়ে মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম বীরেন্দ্রের নানা হতাশার কথা শুনেছেন স্বীকার করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ সকাল ৮টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। প্রাথমিকভাবে একে আত্মহত্যা মনে করেন তিনি। তবে পোস্টমর্টেম রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।