২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্যক্তিগত ই-মেইলে রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য পাঠাইনি ॥ হিলারি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে নিজের ব্যক্তিগত ই-মেইল এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় কোন গোপন তথ্য পাঠাননি বা গ্রহণ করেননি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। আইওয়া অঙ্গরাজ্যে শনিবার এক নির্বাচনী প্রচারাভিযানে দেয়া ভাষণে একথা বলেছেন হিলারি। চলতি সপ্তাহে সরকারী এক তদন্তকারীর চিঠির প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা জানান। খবর ওয়েবসাইটের।

হিলারি বলেন, ওই সময় গোপনীয় ছিল এমন কোন কিছুই আমি পাঠাইনি বা গ্রহণ করিনি। এই ই-মেইল বিতর্ক সত্ত্বেও ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে অবিচল রয়েছেন হিলারি। এতে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে থাকা হিলারি রেকর্ড-রাখার আইন ও স্বচ্ছতাকে পাশ কাটানোর চেষ্টা করছেন বলে সমালোচকরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে হিলারির ব্যক্তিগত ই-মেইল এ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা হয়েছে এমন অন্তত চারটি ই-মেইলে রাষ্ট্রীয় গোপনীয় তথ্য আছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর তত্ত্বাবধায়ক মহাপরিদর্শক চার্লস ম্যাককুলোগ। মার্কিন কংগ্রেসকে এ কথা জানিয়ে বৃহস্পতিবার একটি চিঠি পাঠিয়েছেন তিনি। তবে ওই চিঠিতে ই-মেইলগুলোর কথা বলা হয়েছে কিনা সে সম্পর্কে তার কোন ‘ধারণা’ নেই বলে জানিয়েছেন হিলারি। চিঠিতে ম্যাককুলোগ বলেছেন, হিলারির পাঠানো বা রিসিভ করা ৩০ হাজার ই-মেইলের মধ্যে ৪০টি নমুনা পরীক্ষা করে চারটির মধ্যে সরকার নির্ধারিত গোপনীয় তথ্য পাওয়া গেছে। ই-মেইলগুলো যখন পাঠানো হয়েছিল তখনও এই তথ্যগুলো গোপনীয় হিসেবেই চিহ্নিত ছিল।

সরকারী কাজে ব্যক্তিগত ই-মেইল এ্যাকাউন্ট ব্যবহারের তথ্য ফাঁস হওয়ার পর থেকেই রাজনৈতিক বিরোধীদের তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন হিলারি। রাষ্ট্রীয় কাজে ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহার করে হিলারি আইন ভঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ করে আসছে বিরোধী রিপাবলিকানরা। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে তিনি কোন আইন ভাঙ্গেননি বলে দাবি করে আসছেন তিনি।