১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

একই গ্রুপে ইতালি-স্পেন, হল্যান্ড-ফ্রান্স

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইপর্বে ‘যমের’ গ্রুপে পড়েছে সাবেক দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইতালি ও স্পেন। এই দুই দলই বাছাইপর্বে এক অপরের বিরুদ্ধে লড়বে। যে কারণে কোন একটি দলের মূলপর্ব থেকে বাদ পড়ার শঙ্কাও জেগেছে। কঠিন গ্রুপে পড়েছে হল্যান্ড ও ফ্রান্সও। শনিবার রাতে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে পরবর্তী বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউরোপীয় অঞ্চলে একে অপরের মুখোমুখি হওয়া নিশ্চিত হয়েছে ইতালি-স্পেন ও ফ্রান্স-হল্যান্ডের। ড্র-তে ইতালি ও স্পেনের সঙ্গে ইউরোপ অঞ্চলের ‘জি’ গ্রুপে আছে আলবেনিয়া, ইসরাইল, মেসিডোনিয়া ও লিচেনস্টেইন। ‘এ’ গ্রুপে হল্যান্ড ও ফ্রান্সের সঙ্গে আছে সুইডেন, বুলগেরিয়া, বেলারুশ, লুক্সেমবার্গ। তুলনামূলক সহজ গ্রুপ পেয়েছে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি। ইউরোপের পাওয়ার হাউসদের সঙ্গে ‘সি’ গ্রুপে আছে চেকপ্রজাতন্ত্র, নর্দান আয়ারল্যান্ড, নরওয়ে, আজারবাইজান, স্যান ম্যারিনো। ‘বি’ গ্রুপে পর্তুগালের সঙ্গে আছে সুইজারল্যান্ড, হাঙ্গেরি, ফারো আইল্যান্ডস, লাটভিয়া ও এ্যান্ডোরা। ‘এইচ’ গ্রুপে ফিফার র‌্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বর দল বেলজিয়ামের সঙ্গে আছে বসনিয়া-হার্জেগোভিনা, গ্রিস, এস্তোনিয়া ও সাইপ্রাস। ইংল্যান্ডের সঙ্গে ‘এফ’ গ্রুপে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে সেøাভাকিয়া, স্কটল্যান্ড, মাল্টা, লিথুয়ানিয়া ও সেøাভেনিয়া। ওয়েলস, অস্ট্রিয়া, সার্বিয়া, আয়ারল্যান্ড, মলদোভা ও জর্জিয়াকে নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপ এবং রোমানিয়া, ডেনমার্ক, পোল্যান্ড, মন্টেনেগ্রো, আর্মেনিয়া ও কাজাখস্তানকে নিয়ে গ্রুপ ‘ই’ অপেক্ষাকৃত সহজ। গ্রুপ ‘আই’ তে আছে ক্রোয়েশিয়া, আইসল্যান্ড, ইউক্রেইন, তুরস্ক ও ফিনল্যান্ড। ইউরোপ থেকে মোট ১৪টি দল বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পাবে। এর মধ্যে স্বাগতিক হওয়ার সুবাদে রাশিয়া সরাসরি খেলার সুযোগ পাওয়ায় বাকি ১৩টি স্থানের জন্য বাছাইপর্বে লড়বে মহাদেশটির দেশগুলো। এ লক্ষ্যে ইউরোপের বাকি ৫২টি ফিফার সদস্য রাষ্ট্র ৯টি গ্রুপে ভাগ হয়ে বাছাইপর্বে অংশ নেবে। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দল সরাসরি সুযোগ পাবে বিশ্বকাপের মূলমঞ্চে। আর সেরা আট রানার্সআপের মধ্যে ৪টি দল বিশ্বকাপের টিকেট পাবে। বাছাইপর্বের খেলা আগামী বছরের সেপ্টেম্বর মাসে শুরু হয়ে শেষ হবে ২০১৭ সালের অক্টোবরে। পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল ও দুইবারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার মহাদেশ দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের জন্য ড্রর প্রয়োজন হয় না। এখানকার ১০টি দল হোম-এ্যাওয়ে ভিত্তিতে সবাই সবার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। শেষে পয়েন্ট তালিকার প্রথম চারটি দল সরাসরি বিশ্বকাপের টিকেট পেয়ে থাকে।