২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শ্রীশান্তদের নিয়ে ইতিবাচক সৌরভ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতীয় ক্রিকেটার শান্তকুমারন শ্রীশান্তের কলঙ্কমুক্তি নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন নাটক। একদিকে কয়েক দিন আগেই সুপ্রীমকোর্ট কর্তৃক দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) জনপ্রিয় দুই ফ্র্যাঞ্চাইজি চেন্নাই সুপার কিংস ও রাজস্থান রয়্যালস। অন্যদিকে দিল্লীর আদালত আবার খালাস দেয় রাজস্থানেরই ক্রিকেটার শ্রীশান্থকেÑ দুই আদালাতের এমন দ্বৈতনীতিতে বিশ্লেষকরা হতভম্ব। দিল্লীর ওই আদালতের রায়ের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ইন্ডিয়ান বোর্ড (বিসিসিআই) জানিয়েছে, শ্রীশান্থদের ওপর তাদের নিষেধাজ্ঞা যথারীতি বহাল থাকবে! আবার বোর্ডেরই গুরুত্বপূর্ণ সদস্য, উপদেষ্টা সৌরভ গাঙ্গুলি কলঙ্কমুক্তিকে দেখছেন ইতিবাচক দৃষ্টিতে, সব আসলেই কেমন ভজকট পাকিয়ে গেছে!

আইপিএল স্পট-ফিক্সিং মামলায় (২০১৩) দুই দিন আগে দিল্লী কোর্টে নির্দোষ প্রমাণিত হন জাতীয় দলের তারকা শ্রীশান্তসহ রাজস্থান রয়্যালসের অপর দুই ক্রিকেটার অঙ্কিত চাবান ও অজিত চন্ডিলা। দুই বছরের কলঙ্কমুক্তির খুশিতে আদালতে দাঁড়িয়ে কেঁদে ফেলেন শ্রীশান্ত। পুনরায় ক্রিকেটে ফেরার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বাইশ গজে ফিরতে দেয়া উচিত বলে মনে করেন সাবেক অধিনায়ক সৌরভ। যিনি বর্তমানে বোর্ডে উপদেষ্টার মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন। কলকাতার এক অনুষ্ঠানে সৌরভ বলেন, ‘যদিও এটা সম্পূর্ণ বিসিসিআইয়ের ব্যাপার, তবে আমার ব্যক্তিগত মত কলঙ্কমুক্ত হওয়ায় শ্রীশান্থদের ক্রিকেটে ফিরতে দেয়া উচিত। আদালতের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি, মনে হয় না, বোর্ডের এতে আপত্তি থাকবে।’

যথোপযুক্ত সাক্ষী-প্রমাণের অভাবে শনিবার দিল্লীর বিশেষ আদালত এই তিন ক্রিকেটারকে বেকসুর খালাস দেয়। স্পট-ফিক্সিংয়ের অভিযোগ থেকে মুক্তÑ আদালতের এই রায় শোনার পর আবেগ ধরে রাখতে পারেননি ৩২ বছর বয়সী শ্রীশান্থ। ভারতের হয়ে ২৭ টেস্ট ও ৫৩ ওয়ানডে খেলা এক সময়ের গতিতারকা চোখের পানি মুছতে মুছতে বলেন, ‘ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস ও দেশের বিচারব্যবস্থার ওপর আমার আস্থা ছিল। আজ আমি ভীষণ খুশি। ফের বল হাতে মাঠে নামব, এর থেকে আনন্দের আর কী হতে পারে! চেষ্টা করব পারফর্ম করে ফের জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে। বল হাতে ছন্দ ফিরে পেতে কঠোর পরিশ্রম শুরু করব। মাঝে কঠিন সময় গেছে, তা থেকে বের হয়ে আসতে চাই। কারণ ক্রিকেটই আমার প্রথম ভালবাসা।’

আদালত কর্তৃক ছাড়া পেলেও এখনই স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়তে পারছেন না শ্রীশান্থরা। কারণ ওই দিন সন্ধ্যায়ই বিসিসিআই এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়ে দিয়েছে, বাইশ গজে ফেরা তার জন্য বেশ কঠিন। আদালতে ছাড়া পেলেও অভিযুক্ত তিন ক্রিকেটার থেকে বোর্ডের নিষেধাজ্ঞা উঠছে না। বিসিসিআই তাদের অপরাধকে বোর্ডের নিজস্ব আইনের চোখে দেখছে। তবু ক্রিকেটের মূলধারায় ফিরতে বিসিসিআইর কাছে লিখিত আবেদন জানাবেন এই তিন ক্রিকেটারÑ স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে এমনটাই উল্লেখ করা হয়েছে। আইপিএলের ষষ্ঠ আসরে অর্থাৎ ১৬ মে, ২০১৩ স্পট-ফিক্সিংয়ের দায়ে গ্রেফতার হন রাজস্থান রয়্যালসের তিন ক্রিকেটার শ্রীশান্থ, চাবান ও চন্ডিলা।

আদালতের মুক্তি সত্ত্বেও এখন তারা মাঠে ফিরতে পারেন কিনাÑ সেটিই দেখার বিষয়।

নির্বাচিত সংবাদ