২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ডি মারিয়ার ঠিকানা পিএসজিতেই!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবশেষে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতেই (পিএসজি) নতুন করে ঠিকানা গড়তে যাচ্ছেন এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। এক মৌসুম পার করেই ওল্ড ট্রাফোর্ড ছাড়ছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই আর্জেন্টাই মিডফিল্ডার। শনিবার যুক্তরাষ্ট্র সফরকারী দলে নির্ধারিত সময়ে যোগ দিতে না পারায় ইউনাইটেডে আবারও অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে পড়েছেন তিনি। যদিওবা এদিন ক্যালিফোর্নিয়ায় স্প্যানিশ ক্লাব বার্সিলোনার বিপক্ষে প্রদর্শনী ম্যাচে ৩-১ গোলে সহজেই জয়লাভ করে ডি মারিয়ার দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ডি মারিয়া সম্পর্কে মুখ খুলতে নারাজ কোচ লুইস ভ্যান গালও। এ বিষয়ে রেড ডেভিলদের ডাচ কোচ বলেন, ‘আমি শুনেছি যে সে বিমানে নেই। সুতরাং তার সম্পর্কে আমার বলার কিছুই নেই।’ এরপর তিনি আবার বলেন, ‘আমি শুনতে পেয়েছি সে বিমানে ওঠেনি। এর বেশি কিছুই জানি না।’ আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে কোপা আমেরিকায় অংশগ্রহণের কারণে যুক্তরাষ্ট্র সফরের প্রথম পর্বে ডি মারিয়াকে রাখা হয়নি। তবে কোপার পর সেখানেই দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার কথা ছিল আর্জেন্টাইন তারকার। বিষয়টি আগের দিন সাংবাদিকদের জানিয়েও দিয়েছিলেন কোচ। এদিকে মৌসুম পূর্বপ্রস্তুতির অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র সফরে থাকা ফ্রান্সের শীর্ষ দল প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর কোচ লরেন্ট ব্লাঙ্ক নর্থ ক্যারোলিনার চারলট থেকে বলেছেন, ডি মারিয়াকে দলে ভেড়ানোর প্রক্রিয়াটি ভালভাবেই এগিয়ে চলেছে। সেখানে প্যারিসের চ্যাম্পিয়নরা ট্রাইব্রেকারে হার মেনেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের চ্যাম্পিয়ন চেলসির কাছে। তবে ফরাসী ক্লাবটির অভিজ্ঞ কোচ ব্লাঙ্ক বলেন, ‘বিষয়টি নিষ্পত্তি হতে কিছুটা সময় লাগবে। দুটি বড় ক্লাব তাকে পেতে চাইছে। এখন দেখা যাক ফলাফল কী দাঁড়ায়। অচিরেই আমরা এর ফলাফল পাবার অপেক্ষায় আছি। তবে এ মুহূর্তে সে (ডি মারিয়া) ম্যানচেস্টারের হয়ে খেলবেন না বলেই আমি জানি। আমি এটিও বলছি যে, তার প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে দেয়ার খবরটি এখনও গুজব পর্যায়ে রয়েছে। কারণ এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কিছুই হয়নি।’ ব্রিটেনের ইতিহাসে রেকর্ড ৫৯.৭ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে গত বছর রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছিলেন এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। কিন্তু প্রিমিয়ার লীগের জায়ান্ট ক্লাবটিতে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি তিনি। যে কারণে মৌসুমের পুরোটা সময়ই কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে অতিক্রম করেছেন তিনি। রবিবার এল ইকুইপের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডি মারিয়ার সঙ্গে প্যারিসের ক্লাবটির চুক্তি অনেকটাই চূড়ান্ত হওয়ার পথে। এতে ট্রান্সফার ফি নির্ধারিত হয়েছে ৬৩ মিলিয়ন ইউরো। প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘ক্লাব এবং খেলোয়াড়ের মধ্যে কিছু বিষয়ে এখনও নিষ্পত্তি হয়নি। তবে নিউ জার্সিতে অবস্থানরত দলে কয়েক ঘণ্টা বা কয়েক দিনের মধ্যেই তাকে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’ যদি এ দল বদলটি সম্পন্ন হয় তাহলে এটি হবে চলতি গ্রীষ্মে সবচেয়ে বড় অর্থের দল বদল। কারণ ফ্রান্সে আধিপত্য ধরে রাখার পাশাপাশি পিএসজির এখন প্রধান লক্ষ্য প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লীগে শিরোপা জয় করা।

চার বছর আগে প্যারিসের ক্লাবটিতে কাতারের বিনিয়োগ আসার পর থেকেই প্রতি গ্রীষ্মে একজন করে বড় তারকাকে দলে ভিড়িয়ে আসছে কর্তৃপক্ষ। ২০১১ সালে ৪৩ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে তারা দলে ভিড়িয়েছিল জাভিয়ের পাস্তোরেকে। ২০১২ সালে ৬০ মিলিয়নেরও বেশি ইউরো খরচ করে দলে ভেড়ায় জøাতান ইব্রাহিমোভিচ ও থিয়েগো সিলভাকে। ২০১৩ সালে ৬৪ মিলিয়ন ইউরোতে এডিনসন কাভানিকে এবং ২০১৪ সালে ৫০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে দলভুক্ত করে ডেভিড লুইজকে। এখন নতুন গুজব যদি সত্যি হয় তাহলে এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াই হবেন এ সময়ে দল বদলের আলোচিত নাম। তবে শেষ পর্যন্ত ডি মারিয়া কী পিএসজিতে যাবেন? নাকি ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেই রয়ে যাবেন, ভক্ত-অনুরাগীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।