১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুলিশের তালিকাভুক্ত নিখোঁজ ‘সন্ত্রাসী’ কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী ॥ পটুয়াখালীতে নিখোঁজ অবস্থায় পটুয়াখালী পুলিশের তালিকাভুক্ত এক ‘সন্ত্রাসী’ র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

সোমবার ভোর ৪টার দিকে শহরের পাশে বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় ‘গোলাগুলির’ এ ঘটনা ঘটে। নিহত তরিকুল ইসলাম তরুর (৩২) বাসা শহরের চরপাড়ার স্বনির্ভর রোড এলাকায়।

র‌্যার ৮ পটুয়াখালী ক্যাম্পের অধিনায়ক ফজলুর রহমান জানান, টহলরত অবস্থায় পটুয়াখালী বিসিক শিল্প নগড়ী এলাকায় র‌্যাব অভিজান চালালে তরু ও তার বাহিনীর সদস্যরা র‌্যাবকে লক্ষ করে গুলি বর্ষন করে। এ সময় র‌্যাব আত্মরক্ষার্তে পাল্টা গুলি করে। দু পক্ষের গোলা গুলির এক পর্যায়ে এক যুবকের রক্তাত দেহ পরে থাকলে র‌্যাব তাকে উদ্ধার করে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক এ সময় তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

তরুর কাছ থেকে দেশীয় তৈরী দুটি এলজি, একটি দেশী পিস্তল ও একটি বিদেশী পিস্তল সহ পিস্তলের গুলি ৬ টি, এলজির কার্তুজ ৭ টি, পিস্তলের গুলির খোসা ২টি ও এলজির কার্তুজের ৮টি খোসা, দুটি ম্যাগজিন ও ৬ শ ৪৪ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় র‌্যাব ৮ পটুয়াখালী ক্যাম্পের ডিএডি মনসুর আহমেদ বাদী হয়ে সদর থানায় সরকারী কাজে বাধাদান, মাদকদ্রব্য ও অগ্নেয়াস্ত্র আইনে মোট তিনটি মামলা দায়ের করেছেন।

এরআগে তরু ‘নিখোঁজ’ রয়েছেন জানিয়ে তার স্ত্রী রেখা বেগম গত ২১ জুলাই সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন। ওই জিডিতে বলা হয়, গত ১৭ জুলাই বরিশাল যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়ে যান তরু। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো খোঁজ না পেয়ে তরুর পরিবার থেকে পুলিশকে জানায়।

উল্লেখ্য বিভিন্ন থানায় তরুর বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, চাঁদাবাজী, মাদক দ্রব্য সহ অন্তত ১৪ টি মামলা রয়েছে বলে জনা গেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।