২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাত কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সাত কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। কোম্পানিগুলো হলো : ইউনিক হোটেল, গ্লাক্সোমিথক্লাইন, মেঘনা সিমেন্ট, এনসিসি ব্যাংক, শাহজালাল ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ফনিক্স ইন্স্যুরেন্স। এর মধ্যে চারটির আয় বেড়েছে আর বাকি তিনটি কোম্পানির আয় কমেছে। শুধুমাত্র ব্যাংকিং খাতের তিনটি কোম্পানির মুনাফা বা আয় আগের তুলনায় বেড়েছে।

ডাচ্্-বাংলা ব্যাংক ॥ হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ৫ টাকা ৫৮ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ২০ দশমিক ২৬ শতাংশ বেশি। আগের বছর একই সময় ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৬৪ পয়সা। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির কর পরবর্তী মুনাফা করেছে ১১১ কোটি ৫৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ৯২ কোটি ৮৬ লাখ টাকা।

এনসিসি ব্যাংক ॥ কোম্পানি ন্যাশনাল ক্রেডিট এ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেড (এনসিসি) হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি কনসোলিডেটেড আয় বা ইপিএস করেছে ৫৫ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশ বেশি। আগের বছর একই সময় ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি ইপিএস ছিল ৪০ পয়সা। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির কর পরবর্তী কনসোলিডেটেড মুনাফা করেছে ৪৮ কোটি ২২ লাখ ১০ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি কনসোলিডেটেড মুনাফা করেছিল ৩৪ কোটি ৯৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক ॥ শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি কনসুলেটেড আয় বা ইপিএস করেছে ৭৮ পয়সা। আগের বছর একই সময় ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি কনসুলেটেড লোকসান ছিল ৮১ পয়সা। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির কর পরবর্তী কনসুলেটেড মুনাফা করেছে ৫৭ কোটি ৪৭ লাখ ৭০ হাজার ৫২৭ টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি কনসুলেটেড লোকসান করেছিল ৫৯ কোটি ৩৫ লাখ ৮১ হাজার ৮৭৪ টাকা।

ইউনিক হোটেল ॥ ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রিসোর্টের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৪৬ টাকা। চলতি হিসাব বছরের অর্ধবর্ষে কোম্পানিটি এ আয় করেছে। চলতি হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসের (জানুয়ারি ’১৫ থেকে জুন ’১৫) অনিরীক্ষিত হিসাব অনুযায়ী কোম্পানিটি করপরবর্তী মুনাফা করেছে ৪৩ কোটি ১২ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ১.৪৬ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানিটির করপরবর্তী মুনাফার পরিমাণ ছিল ৪৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয়ের পরিমাণ ছিল ১.৪৯ টাকা। সে হিসাবে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় কমেছে ২ শতাংশ।

গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন ॥ হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে গ্লাক্সোমিথক্লাইনের শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ৩০ টাকা ৮৩ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ কম। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস ছিল ৩৪ টাকা ৮ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির করপরবর্তী মুনাফা করেছে ৩৭ কোটি ১৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ৪১ কোটি ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

মেঘনা সিমেন্ট ॥ হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ৩ টাকা ৬৫ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ১৯ দশমিক ৭৮ শতাংশ কম। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৫৫ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা করেছে ৮ কোটি ২০ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ১০ কোটি ২৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

ফনিক্স ইন্স্যুরেন্স ॥ হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ১ টাকা ৯৮ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ৭ দশমিক ৯০ শতাংশ কম। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস ছিল ২ টাকা ১৫ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির করপরবর্তী মুনাফা করেছে ৭ কোটি ৯৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ৮ কোটি ৬৭ লাখ ২০ হাজার টাকা। গত ৩ মাসে (এপ্রিল ’১৫-জুন ’১৫) কোম্পানিটি করপরবর্তী মুনাফা করেছে ৪ কোটি ৮১ লাখ ২০ হাজার টাকা। আর শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ১ টাকা ১৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ৫ কোটি ৬০ লাখ ৮০ হাজার টাকা। আর শেয়ারপ্রতি আয় করেছিল ১ টাকা ৩৯ পয়সা।