২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফিক্সিং- শ্রীশান্তদের ছাড়ছে না বিসিসিআই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উপযুক্ত তথ্য প্রমাণের অভাবে স্পট-ফিক্সিংয়ের অভিযোগ থেকে শান্তকুমারন শ্রীশান্তকে বেকসুর খালাস দিয়েছে দিল্লীর এক আদালত। ফলে পুনরায় ক্রিকেটে ফেরার স্বপ্নে বিভোর ভারত জাতীয় দলের আলোচিত এই পেসার। সোমবার বাড়ির পাশের স্কুল মাঠে ব্যাট-বল নিয়েও নেমে পড়েছেন, তাকে এক নজর দেখতে সেখানে ছিল উৎসুক মানুষের উপচে পড়া ভিড়। কিন্তু ইন্ডিয়ান ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে, তারা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে না! উল্টো কেন তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি, এ বিষয়ে জানাতে দিল্লী পুলিশকে তলব করবে বিসিসিআই। যার অর্থ শ্রীশান্তদের মাঠে ফেরা সত্যি দুরূহ। ‘স্থানীয় পুলিশের তদন্ত এবং ক্রিকেট বোর্ডের বিষয় এক নয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নিয়মকানুন, আইসিসির দুর্নীতিদমন বিভাগ একসঙ্গে কাজ করে। আইপিএলে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ প্রমাণ হওয়াতেই শ্রীশান্ত, চাবান ও চা-িলাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সুতরাং দিল্লীর আদালতের রায় এখানে বিবেচ্য নয়। ওদের খেলার অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। এত বড় অপরাধীর প্রমাণ কেন পাওয়া গেল নাÑ তা জানতে দিল্লী পুলিশকে ডেকে পাঠানো হবে!’ বিসিসিআইর এক বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। যার অর্থ বিষয়টা আরও জটিল হয়ে উঠতে যাচ্ছে। অবশ্য ক্রিকেটের মূল ধারায় ফিরতে বিসিসিআইর কাছে লিখিত আবেদন জানাবেন এই তিন ক্রিকেটার, স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন তারা। আইপিএল স্পট-ফিক্সিং মামলায় (২০১৩) দু’দিন আগে দিল্লী কোর্টে নির্দোষ প্রমাণিত হন জাতীয় দলের তারকা শ্রীশান্তসহ রাজস্থান রয়্যালসের অপর দুই ক্রিকেটার অঙ্কিত চবান ও অজিত চ-িলা। উপযুক্ত সাক্ষী-প্রমাণের অভাবে শনিবার দিল্লীর বিশেষ আদালত এই তিন ক্রিকেটারকে বেকসুর খালাস দেন। ‘স্পট-ফিক্সিংয়ের অভিাযোগ থেকে মুক্ত’Ñ রায় শোনার পর আবেগ ধরে রাখতে পারেননি ৩২ বছর বয়সী শ্রীশান্ত। ভারতের হয়ে ২৭ টেস্ট ও ৫৩ ওয়ানডে খেলা এক সময়ের গতি তারকা চোখের পনি মুছতে মুছতে বলেন, ‘ঈশ্বরে প্রতি বিশ্বাস ও দেশের বিচারব্যবস্থার ওপর আমার আস্থা ছিল। আমি দারুণ খুশি। ফের বল হাতে মাঠে নামব, এর থেকে আনন্দের আর কী হতে পারে!’ শ্রীশান্ত ভাল করেই জানেন বিসিসিআইর অনুমতি ছাড়া মাঠে ফেরা অসম্ভব। তা সত্ত্বেও ক্রিকেটের মূল স্রোতে ফিরতে মরিয়া পেসার সোমবারই নেমে পড়েন অনুশীলনে। স্বপ্ন জাতীয় দলে ফেরা, ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকপে খেলা। ‘যখন পুরোদমে খেলছিলাম সেই তুলনায় এখন ২০ শতাংশ ফিট। তাই প্রথমে ফিটনেসের ওপর জোর দিচ্ছি। টিম ইন্ডিয়ায় ডাক পাওয়া কোচির প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে সবাই শ্রীশান্তের নাম জেনেছিল, ফের সেই দিনগুলো ফিরিয়ে আনতে চাই। আশা করি একদিন খেলার ছাড়পত্র পাব। নিজের সেরাটা দিয়েই জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে চাই।