১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্ট্রোক, প্যারালাইসিস প্রতিরোধ এবং চিকিৎসা

অনেকে স্ট্রোক বলতে হার্ট এ্যাটাককে মনে করেন। আসলে স্ট্রোক হলো ব্রেইনের অসুখ। মানুষের মৃত্যুর তৃতীয় কারণ হলো স্ট্রোক। প্রথম কারণ ক্যান্সার, দ্বিতীয় কারণ হলো হ্যার্ট এ্যাটাক। প্রতিবছর ১ লাখ মানুষের মধ্যে ১৮০-৩০০ মানুষ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়। স্ট্রোক তিন ধরনের (১) ঞওঅ (২) চৎড়মৎবংংরহম ংঃৎড়শব (৩) ঈড়সঢ়ষবঃব ংঃৎড়শব। ঞওঅ হলে রোগী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জবপড়াবৎু হয়। চৎড়মৎবংংরহম ংঃৎড়শব এ রোগীর অবস্থা ক্রমাগত অবনতি হতে থাকে।

ঈড়সঢ়ষবঃবফ ংঃৎড়শব রোগীর অবস্থা আগের মতো থাকে বা অবনতি হয় না।

আবার স্ট্রোককে অন্যভাবে ঈষধংংরভরবফ করা যায়। একটি হলো রক্তনালী ব্লক হয়ে স্টোক বা ওহঃৎধপবৎবনৎধষ রহভধৎপঃরড়হ। অন্যটা হলো ব্রেইনের রক্তনালী ছিঁড়ে গিয়ে ইৎধরহ এ রক্ত ক্ষরণ হওয়া। শতকরা ৮৫ ভাগ স্ট্রোক হয় রক্তনালী ব্লক হওয়ার কারণে এবং মাত্র শতকরা ১৫ ভাগ স্ট্রোক হয় রক্তনালী ছিঁড়ে গিয়ে ব্রেইন এ রক্তক্ষরণের কারণে।

স্ট্রোকের কারণ : ওংপযধবসরপ ংঃৎড়শব এর কারণ রক্তে কোলেস্টেরল বা খারাপ চর্বির আধিক্য। উরধনবঃবং, ংবফবহঃধৎু ড়িৎশবৎ এবং স্ট্রেসফুল ঔড়ন, তাছাড়া হার্টের অসুখ থেকেও ংঃৎড়শব হতে পারে।

ঐধবসড়ৎৎযধমরপ ংঃৎড়শব বা ইৎধরহ রক্তক্ষরণ হয় ঐরময নষড়ড়ফ ঢ়ৎবংংঁৎব বা উচ্চ রক্তচাপের জন্য। ওংপযবসরপ ঝঃৎড়শব প্রতিরোধ করতে হলে রক্তের চর্বি কমাতে হবে। সেই জন্য ভাত কম খেতে হবে, শাকসবজি, সালাদ বেশি খেতে হবে। বয়স্ক মানুষের গরু খাসির মাংস বর্জন করাই বাঞ্ছনীয়। প্রতিদিন ৩০-৪০ মিনিট জোরে হাঁটতে হবে।

তাছাড়া ধূমপান, মদপান বর্জন করতে হবে।

আর ঐধবসড়ৎৎযধমরপ ংঃৎড়শব প্রতিরোধ করার জন্য নিয়মিত ঐরময নষড়ড়ফ ঢ়ৎবংংঁৎব এর ওষুধ খেতে হবে। এক বেলাও যেন ওষুধ মিস না হয়। প্রয়োজনে উচ্চরক্ত চাপের ওষুধ পকেটে বা ব্যক্তিগত ব্যাগে বা অফিসের কর্মস্থলে রাখতে হবে। কথায় বলে এক বেলা ভাত না খেলে অসুবিধা নেই। কিন্তু এক বেলা ওষুধ না খেলে চলবে না। ঝঃৎড়শব হয়ে গেলে কোন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত অথবা বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেয়া উচিত।

ডাঃ হারাধন দেবনাথ

সহযোগী অধ্যাপক, নিউরোসার্জারি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

০১৭১৩৫৪১২০, dr.haradhan@yahoo.com