২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৩১ জুলাই মধ্যরাতে ছিটমহলে আলোকিত কর্মসুচী

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ দু’দেশের ১৬২টি ছিটমহলে ৩১ জুলাই মধ্যরাতে একইসংগে উৎসবমুখর পরিবেশে পালন করা হবে বর্ণাঢ্য নানা কর্মসুচী। এদিন ছিটমহলের প্রত্যেকটি মুসলিম বাড়িতে ৬৮টি মোমবাতি আর হিন্দু বাড়িতে ৬৮টি প্রদীপ জ্বালানো হবে। এছাড়াও ছিটমহলগুলোর প্রতিটি অন্ধকার সড়কে মশাল জ্বালিয়ে আলোকিত করার পাশাপাশি ওড়ানো হবে আকাশ প্রদীপ। বাদ্য-বাজনা ও নাচ-গানসহ নানা অনুষ্ঠানমালারও আয়োজন করা হয়েছে। ভারত-বাংলাদেশ ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটি যৌথভাবে বাংলাদেশের মধ্যে ১১১টি ছিটমহলে এবং ভারতে ৫১টি ছিটমহলে এসব অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।

১৯৭৪ সালে ইন্দিরা-মুজিব চুক্তির পর থেকে দুদেশের ১৬২টি ছিটমহলের নাগরিকত্বহীন মানুষ নিজের পরিচয় আর একটি দেশের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেঁচে থাকতে ছিটমহল বিনিময় করতে পারেননি। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিটমহলের বন্দী মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে ভারতের তৎকালীন কংগ্রেস সরকারের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সংগে প্রটোকল চুক্তি স্বাক্ষর এবং পরবর্তীতে বর্তমান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বাধ্য করিয়েছেন স্থল সীমান্ত বিল লোকসভায় পাস করাতে। আর যে কারণে দুদেশের ১৬২টি ছিটমহলে বসবাসকারী রাষ্ট্রহীন মানুষগুলো তাদের নাগরিক অধিকার ফিরে পাওয়ায় ৩১ সন্ধ্যার পরই প্রত্যেকটি ছিটমহলের মানুষ ঘর থেকে বেড়িয়ে পড়বে।

নির্বাচিত সংবাদ