২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আয়-ব্যয় হিসাব দিতে অতিরিক্ত দেড় মাস সময় চেয়েছে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজনৈতিক দল হিসেবে আয়-ব্যয়েব হিসাব দাখিলের জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কাছে আরো দেড় মাস সময় চেয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার দুপুরে দলটির সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমানের কাছে এ সংক্রান্ত আবেদনপত্র জমা দেন।

এরপর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, দলের মহাসচিব অনুপস্থিত থাকায় ও নিরীক্ষা প্রতিবেদন চূড়ান্ত না হওয়ায় সময় বাড়ানোর আবেদন করেছি। এক্ষেত্রে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় চাওয়া হয়েছে।

এর আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগও সময় বাড়াতে আবেদন করে। দলটি ৩০ দিন সময় চেয়েছে। এছাড়া জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময় চেয়ে আবেদন করেছে।

আইন অনুযায়ী, প্রতিবছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে দলগুলোকে বিগত বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব ইসিতে দাখিল করতে হয়। পরপর তিন বছর কোনো দল হিসাব দিতে ব্যর্থ হলে সে দলের নিবন্ধন বাতিলের বিধান রয়েছে।

সে অনুযায়ী, গত ১৭ জুন দেশের ৪০টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে ২০১৪ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব দেওয়া জন্য নির্দেশ দিয়েছিল ইসি।

ওই নির্দেশনায় দলগুলোকে অডিট ফার্মের মাধ্যমে দু’টি ছকে মোট ২০ ধরনের তথ্য দিতে বলা হয়েছিল।

এক নম্বর ছক অনুযায়ী, কর্মী বা সদস্যের চাঁদা, কার্যনির্বাহী কমিটি বা উপদেষ্টা পরিষদের চাঁদা বা অন্যান্য চাঁদা, বিভিন্ন ব্যক্তি বা সংস্থার অনুদান, বাড়ি ভাড়া ও অন্যান্য সম্পত্তি থেকে প্রাপ্ত অর্থ, নির্বাচনের সময় প্রার্থীদের অনুদান থেকে আয়ের হিসাব দেখাতে বলা হয়।

এছাড়া দলের পত্রিকা বা বই পুস্তক বিক্রি, ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত সুদ, বিভিন্ন মেয়াদী আমানত ও সঞ্চয়পত্র থেকে প্রাপ্ত সুদ, সেবামূলক প্রতিষ্ঠান থেকে আয় এবং বিবিধ খাতেও আয় দেখাতে হবে।

অন্যদিকে দ্বিতীয় ছক অনুযায়ী, কর্মীদের বেতন ভাতা, আবাসন ও প্রশাসনিক খরচ, বিদ্যুৎ, ওয়াসা, গ্যাসসহ বিভিন্ন ইউটিলিটি ব্যয়, ডাক-টেলিফোন-ইন্টারনেট-কুরিয়ার সার্ভিস ও পত্রিকা বিল বাবদ ব্যয় দেখাতে বলা হয়।

এছাড়া আপ্যায়ন ব্যয়, পোস্টারসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারণার ব্যয়, যাতায়াত, প্রার্থীদের অনুদান, নির্বাচনী ব্যয় ও বিবিধ খাতেও ব্যয় দেখাতে হবে।

তবে এখন পর্যন্ত কেবল দু’টি দল বিগত বছরে তাদের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে। বাংলাদেশ মুসলিম লীগ ও জাতীয় পার্টি (জেপি) ২০১৪ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে।

গত বছরও আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বেশ ক’টি দল সময় বাড়ানোর আবেদন করেছিল। আর ২৫টি দল যথাসময়ে তাদের হিসাব দাখিল করে। এছাড়া পরপর দু’বছর আয়-ব্যয়ের হিসাব ঠিকমত না দেওয়ায় এবারই শেষ সুযোগ পাচ্ছে গণফ্রন্ট।