১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অপহরণের পর ভিক্ষাবৃত্তি ॥ ছয় মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার

অপহরণের পর ভিক্ষাবৃত্তি ॥ ছয় মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ২৮ জুলাই ॥ অপহরণের পর জোরপূর্বক ভিক্ষাবৃত্তিতে নামিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার সময় হবিগঞ্জের উপজেলা বাহুবলের কালুটোলা গ্রাম থেকে ৬ শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে রাসেল মিয়া (২৫) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। আটক রাসেল জেলার নবীগঞ্জ উপজেলাধীন ফুলতলী এলাকার আব্দুল অদুদের ছেলে এবং সদর উপজেলাধীন শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রিজ এলাকার এসআর হোটেলের ম্যানেজার। হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে মঙ্গলবার দুপুরে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে ওই তথ্য জানান এসপি জয়দেব কুমুর ভদ্র। উদ্ধারকৃত শিশুরা হলো কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলাধীন সেকেন্দানগর গ্রামের মালিপাড়া এলাকার বাসিন্দা জনৈক কালা মিয়ার ছেলে সোহাদ (১০), একই গ্রামের গিরিপাড়া মহল্লার আলো মিয়ার ছেলে জুয়েল (১১), ভোরগাঁওয়ের কাঞ্চন মিয়ার ছেলে জুনায়েদ (১৬), কুড়েরপাড় এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে নাঈম (৯), সেকেন্দানগর গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে রেজাউল (১২) ও বজেন্দ্রপুর গ্রামের তাহির মিয়ার ছেলে বরুজ মিয়া (১৩)।

এদিকে, এসপি জয়দেব ও উদ্ধারকৃত শিশুরা জানায়, ওইসব এলাকা থেকে ওদের অপহরণের পর বিভিন্ন দেশে পাচারের চেষ্টা চলছিল। এরই ফাঁকে প্রতিদিন ফজরের নামাজের পর মাদ্রাসার ড্রেস পড়িয়ে ওদের দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ভিক্ষাবৃত্তি করাত পাচারকারীরা। শহীদ ও এমরান নামে দু’জন পাচারকারী এই শিশুদের প্রতিদিন গাড়িতে করে ভিক্ষা করার জন্য নির্দিষ্ট স্থানগুলোতে নামিয়ে দিত। আবার দিন শেষে এসব স্থান থেকে শিশুদের গাড়িতে করে নিয়ে যেত। শিশুরা প্রতিদিন ৩/৪শ’ টাকা পাচারকারী দলের নেতার হাতে তুলে দিত। টাকার পরিমাণ কম হলে এই শিশুদের শারীরিক নির্যাতন করা হতো। এমনি পরিস্থিতিতে হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলাধীন ওই স্থানে শিশু সোহাদ, জুয়েল ও জুনায়েদ ভিক্ষা করতে গেলে এলাকার বাসিন্দা মৌলানা ফারুকের সন্দেহ হয়। তিনি এই শিশুদের আটকিয়ে পুলিশকে তা অবহিত করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিশুদের উদ্ধার এবং তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই হোটেল থেকে অপর তিন শিশুকে উদ্ধারসহ ম্যানেজার রাসেলকে আটক করে। এদিকে এই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় একটি মামলা করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, উদ্ধারকৃত শিশুদের যার যার পরিবারের হাতে তুলে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ থেকে জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হারুন মিয়া (১০) নামে মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কাঞ্চন ব্রিজ এলাকা থেকে ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করা হয়। হারুন মিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার বাড়িগাঁওয়ের আমির হোসেনের ছেলে।

উদ্ধার হওয়া হারুন মিয়া জানায়, গত সোমবার সকালে সাগর মিয়া নামে এক যুবক পাঞ্জাবি কিনে দেয়ার কথা বলে হারুন মিয়াকে তার নিজ এলাকা থেকে নিয়ে আসে। এর পর ট্রেনে নরসিংদী স্টেশনে আসে। পরে হারুন মিয়াকে নিয়ে সাগর ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। ওই দিন বিকেলে কাঞ্চন এলাকায় ঢাকার একটি গাড়িতে ওঠার সময় স্থানীয় লোকজন সাগর মিয়াকে সন্দেহ করে। পরে সাগর মিয়া শিক্ষার্থী হারুন মিয়াকে রেখে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয় এক ব্যক্তির কাছে হারুন মিয়াকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ ওই ব্যক্তির কাছ থেকে তাকে উদ্ধার করে।