২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আয়াজ আলীর দোষ স্বীকার রাজন চোর ছিল না

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সিলেটে কিশোর সামিউল আলম রাজন হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আয়াজ আলী নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ২টা ৪৫ থেকে ৩টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত সিলেট মহানগর হাকিম আদালত-১ এর বিচারক সাহেদুল করিমের আদালতে এই জবানবন্দী গ্রহণ করা হয়।

আয়াজের জবানবন্দীর বরাত দিয়ে রাজন হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক সুরঞ্জিত তালুকদার জানান, আদালতে আয়াজ জানিয়েছে রাজন চোর ছিল না। কুমারগাঁওয়ে যেখানে রাজনকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়, সেখানে গ্যারেজে রাখা একটি ভ্যান নিয়ে আরও কয়েকটি শিশুর সঙ্গে রাজন খেলা করছিল। গ্যারেজের চৌকিদার ময়না রাজনকে ধরে চোর সাজায়। সে রাজনকে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে বাঁধে। এ সময় আয়াজ ‘খেলার ছলে’ রাজনকে বাঁধতে সাহায্য করে বলে আদালতে জবানবন্দীতে জানিয়েছে। আদালতে আয়াজ নিজে রাজনকে মারধর করেনি, তবে ময়না, কামরুলসহ অন্যরা মারধর করেছে বলে জানিয়েছে। রাজন হত্যা মামলায় প্রত্যক্ষদর্শীসহ ১২ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তন্মধ্যে ৮ জন জবানবন্দী দিয়েছে।

মানববন্ধন ॥ শিশু শেখ সামিউল ইসলাম রাজন হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ফাঁসির দাবিতে সিলেট নগরীর আম্বরখানা পয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।

২০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মানববন্ধন ॥ রাজন হত্যাকা-ে জড়িতদের দ্রুত বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ২০ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সকালে নিহত রাজনের বাড়ির সামনের রাস্তায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে কয়েকটি গ্রামের অন্তত ২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে দুই সহস্রাধিক শিশু-কিশোর ও শিক্ষকরা অংশগ্রহণ করেন।

স্মারকলিপি ॥ রাজন হত্যাকারীদের দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে সিলেট বিভাগ গণদাবি ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটি। মঙ্গলবার সকালে সিলেট জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কমিশনারের কাছে স্মারকলিপি দিয়ে এ দাবি জানানো হয়।