২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোবাইল কোর্টের পরিধি বাড়াতেও মাদক প্রতিরোধে বিচারিক ক্ষমতা চান ডিসিরা

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ মোবাইল কোর্টের পরিধি বাড়ানোর জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন জেলা প্রশাসকরা (ডিসিরা)। পরিবেশ আইন অন্তর্ভুক্তির পাশাপাশি এমফিটামিন’ জাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ও ফেন্সিডিল প্রতিরোধে মোবাইল কোর্ট আইনে বিচার করার ক্ষমতা চান জেলা প্রশাসকরা। এছাড়া প্যারোলে মুক্ত কারাবন্দীরা কত দূরত্বে যেতে পারবেন তা নির্ধারণের প্রস্তাব দিয়েছেন জেলা প্রশাসকরা। আর এ লক্ষ্যে একটি নীতিমালা করারও প্রস্তাব দেন তারা। পাশাপাশি পরীক্ষার হলে বহুনির্বাচনী প্রশ্নের (এমসিকিউ) উত্তর পরীক্ষার্থীদের অনেক শিক্ষক বলে দেন বলে অভিযোগ করেছেন জেলা প্রশাসকেরা। এ অনিয়ম এড়াতে তারা কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার প্রস্তাব করেছেন। স্বরাষ্ট্র ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত অধিবশনে ডিসিরা এ প্রস্তাব করেন।

সম্মেলনে আলোচনার জন্য জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনাররা বিভিন্ন প্রস্তাব পাঠান। এ বছর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত কার্য-অধিবেশনে ১২টি বিষয় আলোচনায় স্থান পায়। এর মধ্যে ‘এমফিটামিন’ জাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ও ফেন্সিডিল প্রতিরোধে ২০০৯ সালের মোবাইল কোর্টে আইনের আওতায় ১০০ গ্রাম পর্যন্ত ‘এমফিটামিন’ জাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ও ফেন্সিডিল সংক্রান্ত অপরাধের বিচার করার ক্ষমতা চান ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার। এ ক্ষমতা দেয়া হলে মাদকসেবীদের দৌরাত্ম্যও কমবে বলে মনে করেন বিভাগীয় কমিশনার।

মঙ্গলবার থেকে টানা তিন দিনব্যাপী জেলা প্রশাসক সম্মেলন শুরু হয়। সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের শাপলা হলে এ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সচিবালয়ে দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হয় বিকেল চারটায়। দ্বিতীয় অধিবেশনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত কার্য-অধিবেশনে মোট ১২টি বিষয় আলোচিত হয়। সম্মেলনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত এ কার্য-অধিবেশনে জেলা প্রশাসকদের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ মোজাম্মেল হক খান।

ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক বলেন, প্যারোলে মুক্তি দেয়ার ক্ষেত্রে আটক বন্দীদের জেলা শহরের বাইরে নেয়ার বিধান নেই। প্যারোলে মুক্তির ক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত ছোট আয়তনের জেলা শহরের কারাগারে আটক বন্দীরা বড় শহরের বন্দিদের তুলনায় কম দূরত্বে যাওয়ার সুযোগ পান।

অর্থমন্ত্রণালয় ॥ ২০১৫Ñ১৬ অর্থবছরের বাজেট বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসকদের সহযোগিতা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এছাড়াও বাজেটে রাজস্ব আদায়ের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে তা প?ূরণ করতেও জেলা প্রশাসকদের সজাগ থাকার আহ্বান জানান তিনি।

শিক্ষা ॥ সাধারণ বিষয়ে শিক্ষকের পাশাপাশি তথ্য ও যোগাযোগ (আইসিটি) বিষয়ের শিক্ষক স্বল্পতা পূরণ, মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুমে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ এবং অঞ্চলভেদে বিশেষায়িত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপনের প্রস্তাব করেছেন দেশের জেলা প্রশাসকেরা (ডিসি)। এছাড়া প্রত্যেক জেলায় একটি করে কালেক্টরেট স্কুল এ্যান্ড কলেজ স্থাপনেরও প্রস্তাব দিয়েছেন কয়েক জেলার প্রশাসক। পাশাপাশি পরীক্ষার হলে বহুনির্বাচনী প্রশ্নের (এমসিকিউ) উত্তর পরীক্ষার্থীদের অনেক শিক্ষক বলে দেন বলে অভিযোগ করেছেন জেলা প্রশাসকেরা (ডিসি)।

জেলা প্রশাসক সম্মেলন উপলক্ষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে শিক্ষার মানোন্নয়নে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে বিভিন্ন প্রস্তাব করেন ডিসিরা। পাবনা, খুলনা, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, যশোর জেলা প্রশাসক প্রস্তাব দিয়েছেনÑ বিভিন্ন জেলায় স্থাপিত কালেক্টরেট স্কুল এ্যান্ড কলেজ মানসম্মত শিক্ষা বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তবে প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়োগ, পরিচালনা কমিটির গঠন বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোন নীতিমালা না থাকায় সব প্রতিষ্ঠানের মান একই রকম হচ্ছে না। প্রত্যেক জেলায় একটি করে কালেক্টরেট স্কুল এ্যান্ড কলেজ স্থাপন এবং তা পরিচালনায় অভিন্ন নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বান জানিয়েছেন এ পাঁচ জেলার ডিসি।

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক বলেছেন, সরকারী কলেজে আইসিটি বিষয় বাধ্যতামূলক হলেও শিক্ষকের পদ সৃজন হয়নি। প্রত্যেক সরকারী কলেজে আইসিটি শিক্ষকের পদ সৃজনের সুপারিশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

সরকারী বিদ্যালয়ে ভর্তির বিষয়ে বয়স নির্ধারণে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে সমন্বিত নীতিমালা প্রণয়নের ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের প্রস্তাবনায় সায় দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের জন্য ৮৭টি পদ সৃজনের প্রস্তাব করেছেন। সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ পূরণের প্রস্তাব দিয়েছেন নাটোর জেলা প্রশাসক। এবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সনদপত্র এবং মেধা ও কোটাভিত্তিক বৃত্তি প্রদানের প্রস্তাব করেছেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক। এতে সুপারিশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মুস্তাফিজুর রহমান দু’জনেই মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে ডিসিদের ভূমিকা রাখতে নির্দেশ দেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা ॥ জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষকদের গেজেট প্রকাশ করে বেতন-ভাতাদি প্রদানে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসকের প্রস্তাবনায় সুপারিশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।