২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজশাহীতে শিশু অপহরণের চেষ্টা, আটক ১

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহীর বাগমারায় তবলীগ জামায়াতের মুসল্লি সেজে শিশুকে অপহরণের চেষ্টাকালে এক অপহরণকারিকে ধরে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় লোকজন। আজ বুধবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের রামরামা গ্রামের জলপাইতলায় এ ঘটনা ঘটে। তুহিন (১২) নামের এক শিশুর কাছ থেকে সাইকেল ছিনতাই করে নাইম (৭) নামের অপর এক শিশুকে অপহরন করে পালানোর সময় প্রায় ছয় কিলোমিটার দুরে নাটোরের নলডাঙ্গা থানার বারইহাটি গ্রামের লোকজন অপহরনকারীকে ধরে ফেলে বলে জানান বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মতিহার রহমান।

ওই অপহরণকারীর নাম এমাম আকন (২৮)। সে বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রামে শাহ সালামের ছেলে। বাগমারা থানার ওসি মতিহার রহমান বলেন, রামরামা গ্রামের জলপাইতলা এলাকার তৈয়ব আলী ছেলে তুহিন ও নাসের মন্ডলের ছেলে নাইম সকাল ৭টার দিকে সাইকেলে চড়ে বেড়াচ্ছিল। এসময় অপহরণকারি এমাম লাঠি দিয়ে তুহিনকে মেরে তার সাইকেল কেড়ে নেয়। এর পর নাইমকে অপহরণ করে ওই সাইকেলে করে নিয়ে পালিয়ে যায়।

তবে শিশুটির কান্নাকাটি দেখে বারইহাটি গ্রামের লোকজনের সন্দেহ হলে নাইমকে থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। নাইম তার ছেলে পরিচয় দিলেও ওই শিশু জানায় সে ওই লোককে চিনেন না। জোর করে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে। এরপর গ্রামের লোকজন তাকে ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে বাগমারা থানার পুলিশ গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার ও অপহরণকারিকে আটক করে।

এদিকে, খবর পেয়ে গ্রামের লোকজন জলপাইতলা মসজিদে আসা তাবলিগ জামায়াতের মুসল্লিদের ঘেরে ফেলে গ্রামের লোকজন। এসময় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও জলপাইতলা এলাকার আলমগীর হোসেন সরকার বলেন, গত ২৭ জুলাই বিকেলে তাদের মসজিদে তাবলিগ জামায়াতের ১৪ জন সদস্য আসেন। বুধবার বিকেলে তাদের অন্য মসজিদে চলে যাওয়ার কথা। তাদের মধ্যে অনেক সরকারি উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাও রয়েছেন। এদের মধ্য থেকে এমাম নামের ওই মুসল্লি বের হয়ে শিশু অপহরণ করে বলে জানান তিনি।

নির্বাচিত সংবাদ