২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাকাকে রক্ষার সকল ষড়যন্ত্রের অবসান হলো

  • বিভিন্ন মহলের সন্তোষ, মিষ্টি বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আপীল বিভাগে কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসির রায় বহাল থাকায় গণজাগরণ মঞ্চসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, এ রায়ের মধ্য দিয়ে সাকাকে রক্ষার সকল ষড়যন্ত্রের অবসান হলো। পাশাপাশি এ রায়ের মধ্য দিয়ে জাতি ন্যায় বিচার পেয়েছে বলেও মনে করেন অনেকে। আইনী জটিলতা কাটিয়ে সবাই রায় দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন। বুধবার সাকার রায় ঘোষণার পর পরই পৃথকভাবে দেয়া বিবৃতি ও কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে এসব দাবি দাওয়ার কথা তুলে ধরা হয়। ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। আয়োজন করা হয় জমায়েত ও আনন্দ মিছিলের।

চক্রান্তের বিনাশ হয়েছে- ইমরান ॥

মানবতাবিরোধী অপরাধে বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসি আপিল বিভাগে বহাল রাখার মধ্য দিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের ‘চক্রান্তের বিনাশ’ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডাঃ ইমরান এইচ সরকার। বুধবার প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপীল বিভাগের বেঞ্চ যুদ্ধাপরাধী সাকা চৌধুরীকে দেয়া ট্রাইব্যুনালের ফাঁসির রায় বহাল রাখে।

গত কয়েকদিন ধরে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শাহবাগে অবস্থান নেয়া ইমরান রায়ের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এ রায়ের মধ্য দিয়ে সত্য ও সুন্দরের জয় হয়েছে। ১৬ কোটি মানুষের বিজয় নিশ্চিত হয়েছে। তিনি বলেন, এ রায়ের মাধ্যমে চক্রান্তের বিনাশ হয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের প্রভাব খর্ব হয়েছে। এটা আজ আবার প্রমাণিত হয়েছে যে কোন ধরনের অপশক্তিকে মোকাবিলা করার শক্তি বাংলাদেশের জনগণের রয়েছে।

সকাল আটটা থেকে মঞ্চের কর্মী-সমর্থকরা প্রজন্ম চত্বরে অবস্থান নেন। এ সময় তারা সেøাগানে সেøাগানে সাকার ফাঁসির দাবি জানান। সকাল সাড়ে নয়টার মধ্যে প্রজন্ম চত্বরে ফাঁসি বহাল রাখার খবর আসে। সঙ্গে সঙ্গে উল্লাসে ফেটে পড়েন সবাই। সমস্বরে সকলে বলতে থাকেন, ‘এইমাত্র খবর হলোÑ রাজাকার সাকার ফাঁসি হলো’। শুরু হয় আনন্দ মিছিল। পরে একে অপরের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করতে দেখা গেছে।

দ্রুত রায় বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে ইমরান বলেন, এরই মধ্যে দুটি রায় কার্যকর করা হয়েছে। আমরা দ্রুত আলী আহসান মুজাহিদ এবং সাকা চৌধুরীর ফাঁসির রায় কার্যকর দেখতে চাই। যুদ্ধাপরাধের প্রতিটি রায়ের পর গণজাগরণ মঞ্চ বিজয় মিছিল করলেও ‘আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে’ এবার তা করা হয়নি বলে জানান ইমরান।

তিনি বলেন, মাননীয় আদালত তার অবজারভেশনে বলেন যে, কোন ধরনের প্রতিক্রিয়া যাতে দেখানো না হয়। সে কারণেই আমরা আনন্দ মিছিল বাতিল করেছি। মিছিল না হলেও ‘জয় হল রে জয় হল/ শাহবাগের জয় হল’, ‘জয় হলরে জয় হল/ সাকার ফাঁসি হল’ এবং যুদ্ধাপরাধবিরোধী বিভিন্ন সেøাগানে দীর্ঘ সময় উল্লাস প্রকাশ করতে দেখা যায় গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের।

ইমরান বলেন, আদালত যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাতে নিষেধ করেছেন, একইভাবে যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোসররা যেভাবে আদালতকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করে সে বিষয়ে আরও বেশি সচেতন হবে বলে আশা করছি। তিনি বলেন, গণজাগরণ মঞ্চ কোন অপরাধীর রায়কে প্রভাবিত করেছে না। বরং ন্যায়বিচার পাওয়ার আন্দোলন করে যাচ্ছে। সাকার ফাঁসির রায় বহাল রাখার দাবিতে কামাল পাশা চৌধুরী নেতৃত্বাধীন গণজাগরণ মঞ্চের আরেকটি অংশও সকালে শাহবাগে অবস্থান নেয়। রায়ের পর সন্তোষ প্রকাশ করে কামাল পাশা দ্রুত তা কার্যকরের দাবি জানান।

গণতন্ত্রী পার্টির সন্তোষ ॥ সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসির রায় বহাল রাখায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে গণতন্ত্রী পার্টি। এদিকে সাকার মৃত্যুদ- বহাল রাখায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হারুন হাবীব স্বাক্ষরিত বার্তায় বলা হয়, এ রায়ের মধ্য দিয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের লাখো শহীদের আত্মার প্রতি সুবিচার হয়েছে।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এক বিবৃতিতে, যুদ্ধাপরাধী কুখ্যাত সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর (সাকা) মৃত্যুদ-াদেশ সর্বোচ্চ আদালত বহাল রাখায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

এদিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য কুখ্যাত রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর মৃত্যুদ- সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগেও বহাল থাকায় এ প্রজন্মের প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে বলে মনে করছে বাংলাদেশ অনলাইন এ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

বাংলার মাটি পাপ ও কলঙ্কমুক্ত হবে ॥ মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের সাকা চৌধুরীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদ-ের রায় বহাল রাখায় সন্তোষ ও বিচারপতিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধ, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীসহ সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচার দ্রুত সম্পন্ন করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করার দাবিতে অনুষ্ঠিত সমাবেশে এ সন্তোষ প্রকাশ করেন মন্ত্রী। গণহত্যার দায়ে সাকা চৌধুরীকে দেয়া ফাঁসির রায় অবিলম্বে কার্যকর করতে এ সময় সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

শাজাহান খান বলেন, সাকার ফাঁসির রায়ের মধ্য দিয়ে বাংলার মাটি পাপ ও কলঙ্কমুক্ত হবে। তিনি বলেন, সাকা চৌধুরী একজন কুরুচিপূর্ণ ও জঘন্যতম ব্যক্তি। এ সময় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সম্পর্কে নৌমন্ত্রী বলেন, বেগম জিয়া গণহত্যার নায়িকা। তিনি (খালেদা) শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে আসার চিন্তা করছেন। আমরা তাকে স্বাগত জানাই।

সালাউদ্দিনের ফাঁসি বহালের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বেসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, জাতির প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে এ রায়ে। ঔদ্ধত্যপূর্ণ এ যুদ্ধাপরাধী রং পাল্টে বিভিন্ন সময় ক্ষমতায়ও আরোহণ করেছে। এমন এক ব্যক্তির আজ বিচার হলো। বিএনপিও অন্তত এর দায় নেবে না।