১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতের নতুন কোচ নিয়োগ শীঘ্রই

  • বাছাইয়ের দায়িত্বে শচীন-সৌরভ, অনিশ্চিত রবি শাস্ত্রীর ভাগ্য

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতীয় ক্রিকেটে কোচ শূন্যতার অবসান ঘটতে যাচ্ছে। সেপ্টেম্বরে ঘরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সিরিজের আগেই বিরাট কোহলি-মহেন্দ্র সিং ধোনিদের জন্য নতুন প্রধান কোচ বেছে নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ইন্ডিয়ান বোর্ড (বিসিসিআই) সচিব অনুরাগ ঠাকুর। গত বিশ্বকাপের আগেই মেয়াদ শেষ হয় ডানকান ফ্লেচারের। তার সঙ্গে আর চুক্তি নবায়ন করেনি বিসিসিআই। সেই থেকে প্রশ্ন, কে হচ্ছেন মোড়ল দেশের প্রধান কোচ? এ নিয়ে জল কম ঘোলা হয়নি। এসেছে শচীন টেন্ডুলকর-সৌরভ গাঙ্গুলীর নামও। কোচের চাকরি নয়, বরং কোচ নির্বাচনের মূল দায়িত্ব পালন করবেন সাবেক দুই গ্রেট, যারা বর্তমানে বিসিসিআইয়ের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন।

স্থানীয় বিশেষজ্ঞমহলের অনেকে মনে করছিলেন, ২০১৯ ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে পর্যন্ত ‘টিম ডিরেক্টর’ রবি শাস্ত্রীর তত্ত্বাবধানেই খেলবেন ধোনি-কোহলিরা। ততদিনে প্রস্তুত হয়ে জাতীয় কোচ হয়ে আসবেন বর্তমানে জুনিয়র দলের দায়িত্বে থাকা আরেক গ্রেট রাহুল দ্রাবিড়। তবে বিসিসিআই সচিবের বক্তব্য পরিষ্কার, শীঘ্রই কোচ নিয়োগ দিতে যাচ্ছে ভারত। ‘তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে শচীন, সৌরভ ও লক্ষণ রয়েছেন। তাদের ওপরই জাতীয় দলে প্রধান কোচের নাম বাছাইয়ের দায়িত্ব দেয়া হবে। আমরা নিশ্চিত করতে চাই, কোন রকম প্রভাব ছাড়া বিসিসিআইয়ের উপদেষ্টা কমিটির এই তিন সদস্যই মুখ্য ভূমিকা পালন করবেন। তারা যাচাই-বাছাই করবেন, মূল্যবান পরামর্শ দেবেন, যার ভিত্তিতেই নতুন কোচ নিয়োগ দেয়া হবে।’ বলেন ঠাকুর।

কোচ বাছাইয়ের প্রক্রিয়াটা যে, শীঘ্রই শুরু হবে সেটিও নিশ্চিত করেন তিনি। সচিব আরও যোগ করেন, ‘দরজায় কড়া নাড়া শ্রীলঙ্কা সফরে শাস্ত্রীই দলের দায়িত্বে থাকছেন। আশা করছি, সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ঘরের মাটতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের আগেই দলে কোচিং স্টাফে কিছু হৃদবদল হবে। উপদেষ্টা কমিটি কোচের নাম প্রস্তাব করলে বোর্ড সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে। ততক্ষণ পর্যন্ত বর্তমান ম্যানেজমেন্ট দায়িত্ব পালন করবেন।’ তাহলে রবি শাস্ত্রীর অধ্যায় কী শেষ হতে চলেছে? ঠাকুরের ভাষায়Ñ আপাতত নিজের পদে, অর্থাৎ ‘টিম ডিরেক্টর’ হিসেবে বহাল থাকছেন সাবেক তারকা ক্রিকেটার ও তুখোড় ধারাভাষ্যকার। তবে এটা ঠিক টিম ইন্ডিয়ার ম্যানেজমেন্টে শাস্ত্রীর ভবিষ্যত অনেকটাই অনিশ্চিত।

ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট ভরাডুবির পর হুট করেই ‘টিম ডিরেক্টর’ নাম দিয়ে নতুন একটি পদ সৃষ্টি করে সেখানে বসিয়ে দেয়া হয়েছিল শাস্ত্রীকে। ওয়ানডেতে ভাল করেছিল ধোনি বাহিনী। বিশ্বকাপেও একই দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এমনকি সর্বশেষ বাংলাদেশ সফরে একই সঙ্গে কোচের দ্বৈত ভূমিকায় দেখা গেছে প্রভাবশালী এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্বকে। শাস্ত্রী বরাবরাই জাতীয় দলে নতুন কোচ নিয়োগ দেয়ার বিরোধিতা করেছেন, পাশাপাশি তার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি না করলে বোর্ড থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ইঙ্গিতও দিয়েছেন! সুতরাং ঠাকুরের বক্তব্য মেলালে ভারতীয় দলে শাস্ত্রী অধ্যায় শেষের পথে।

উল্লেখ্য, ১২ আগস্ট-১ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা সফরে তিন টেস্টের সিরিজ খেলবে কোহলির দল। এরপর ২ অক্টোবর-৩ ডিসেম্বর ঘরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে দুই টি২০, পাঁচ ওয়ানডে ও চার টেস্টের ম্যারাথন দ্বৈরথ। তার আগেই প্রধান কোচ বেছে নেবেন সৌরভ-শচীনরা।