১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তারুণ্য বনাম অভিজ্ঞতার লড়াই

  • শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান প্রথম টি২ আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কা ও সফরকারী পাকিস্তানের মধ্যকার দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি২০ আজ। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়। বিশ্বকাপ ব্যর্থতা ও বাংলাদেশ ভরাডুবির পর পাকিদের জন্য এই সফরটা ছিল মহা চাপের। দাপটের সঙ্গে টেস্ট-ওয়ানডে দুই সিরিজ জিতে সেই চাপ রিলিজ করে দিয়েছে মিসবাহ-উল হক ও আজহার আলির দল। এবার শহীদ আফ্রিদির পালা- যেখানে কেবল আত্মবিশ্বাস নয়, অভিজ্ঞতা-সামর্থ্য দুই বিচারেই এগিয়ে তারা। আফ্রিদির ভা-ারে এক ঝাঁক তুখোড় পারফর্মার। অন্যদিকে পাঁচ নতুন মুখ নিয়ে ঘোষিত লাসিথ মালিঙ্গার নেতৃত্বাধীন টি২০’র বিশ্বচ্যাম্পিয়ন লঙ্কানদের জন্য এটি আরেক অগ্নিপরীক্ষা।

বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত গত টি২০ বিশ্বকাপের শিরোপা জিতে চমক দেখায় শ্রীলঙ্কা। বোলিংয়ে-নেতৃত্বে অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শন করেন মালিঙ্গা। ব্যাট হাতে তুরুপের তাস হয়ে ছিলেন মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারা। ফাইনালে ট্রফি উচিয়ে ধরার পরই টি২০ জার্সি খুলে রেখেছেন তারা। গত বিশ্বকাপ খেলে বিদায় জানিয়েছেন ওয়ানডেকেও। পাকিস্তানের কাছে ২-১এ টেস্ট এবং ৩-২এ ওয়ানডে সিরিজ হারা এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের লঙ্কান শিবির এই দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের অভাব হারে হারে টের পেয়েছে। টের পেতে হবে লাসিথ মালিঙ্গাকেও। স্বাগতিকদের দল দেখেই বোঝা যায় দুই মহারথীকে হারিয়ে এবার সবকিছু নতুন করে শুরু করতে চাইছে তারা।

পাঁচ নতুন ক্রিকেটার নিয়ে টি২০’র প্রাথমিক দল সাজিয়েছে লঙ্কান নির্বাচক বোর্ড। এরা হলেনÑ ফাস্ট বোলার বিনুরা ফার্নান্ডো, লেগস্পিনার জেসরি ভ্যান্ডার্সি, এবং ব্যাটসম্যান শিহান জয়সুরিয়া, দাসুন শানাকা ও ধনঞ্জিয়া ডি সিলভা। অবশ্য একসঙ্গে এদের সবাইকেই যে নামিয়ে দেয়া হবে তা নয়, তবে ভিন্ন ভিন্ন ম্যাচে অবশ্যই পরখ করা হবে। ‘সাঙ্গা-মাহেলা নেই। এই বাস্তবতাটা মেনে নিয়েই আমাদের সামনের দিকে এগোতে হবে। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি২০ সিরিজে তাই এক ঝাঁক নবীনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। লক্ষ্য ২০১৬ বিশ্বকাপ সামনে রেখে সেরা দল তৈরি করা। আমার বক্তব্য পরিষ্কার, পাকিস্তানের বিপক্ষে ওদের নামিয়ে দিয়ে বলা হবে, যাও পারফর্ম করে এসো।’

তারুণ্যের সঙ্গে স্বাগতিক দলে অভিজ্ঞতার মিশ্রণও থাকছে। অধিনায়ক ম্যাথুসের সঙ্গে আছেন তিলকারতেœ দিলশান, এাঞ্জেলো ম্যাথুস, সচিত্র সেনানায়েকে, নুয়ান কুলাসেকারা ও থিসারা পেরেরার মতো ক্রিকেটার। ইনজুরি কাটিয়ে ফিরেছেন দিনেশ চান্দিমাল ও লাহিরু থিরিমান্নে। পেস বোলিংয়ে ধার বাড়াতে ২০১২ সালের পর ডাকা হয়েছে চামারা কাপুগেদারাকে। ফেরা যাক পাকিস্তানের দিকে। অতিথিদের ওয়ানডে ও টি২০’র দলে খুব বেশি পার্থক্য নেই। বড় পার্থক্য আফ্রিদির নেতৃত্ব। টেস্ট ও ওয়ানডেকে বিদায় জানিয়ে তুমুল জনপ্রিয় এই অলরাউন্ডার খেলছেন কেবল টি২০তে, আগামী বিশ্বকাপ খেলে ‘বিদায়’ বলবেন তিনি। আফ্রিদির হাতে রয়েছে ধুরন্ধর সব পারফর্মার। যেখানে একজনের ব্যক্তিগত নৈপুণ্যই বদলে দিতে পারে দৃশ্যপট। ব্যাটিংয়ে মোহাম্মদ হাফিজ, আহমেদ শেহজাদ, সরফরাজ আহমেদ, শোয়েব মালিক নামগুলোই সেটি প্রমাণ করে।

বোলিংয়ে পেসার মোহাম্মদ ইরফান, আনোয়ার আলি, সোহেল তানভিরের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ইয়াসির শাহ। টেস্টে গত এক বছরে অবিশ্বাস্য বোলিং নৈপুণ্যে ওয়ানডের পর ফের টি২০তে জায়গা করে নিয়েছেন ২৯ বছর বয়সী ঘূর্ণি বোলার। গত বছর অক্টোবরে টেস্ট অভিষেকের পর এরই মধ্যে ১০ ম্যাচে তুলে নিয়েছেন ৬১ উইকেট! ‘টেস্টের পর ওয়ানডেতেও ইয়াসির এখন মূল স্ট্রাইক বোলার হয়ে উঠেছে। এবার টি২০তেও নিজেকে প্রমাণের সুযোগ পাবে সে।’ বলেন প্রধান নির্বাচক হারুন রশীদ। অবশ্য ইনজুরি থেকে সুস্থ হলেও পুরোপুরি ফিট হয়ে না ওঠায় টি২০তে নেই তারকা পেসার ওয়াহাব রিয়াজ।

২০০৭ থেকে মোট ১২ টি২০ ম্যাচে মুখোমুখি হয়ে ৭ জয়ে এগিয়ে পাকিস্তান, লঙ্কানদের সাফল্য ৫টিতে। ১৩ ডিসেম্বর ২০১৩ সর্বশেষ দেখায় অবশ্য জয় শ্রীলঙ্কার। দুবাইয়ে মোহাম্মদ হাফিজদের ২৪ রানে হারিয়েছিল কুমার সাঙ্গাকারার দল।