২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুত্রসহ গৃহবধূর আড়াই মাসেও খোঁজ মেলেনি

নিজস্ব সংবাদদাতা, মির্জাপুর, ২৯ জুলাই ॥ নিখোঁজ হওয়ার আড়াই মাসেও মির্জাপুরের গৃহবধূ সুমিকে উদ্ধার করতে পারেনি থানা পুলিশ। গত ২২ মে আড়াই বছরের শিশুপুত্র নীড়কে নিয়ে সুমি তার স্বামীর বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন। সুমি ও সন্তানকে উদ্ধার করতে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে মঙ্গলবার বিকেলে সুমির ভাই ও মা মির্জাপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সুমি মির্জাপুর উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের কুইচতারা গ্রামের শরিফুল ইসলামের স্ত্রী। এ ব্যাপারে শরিফুল ইসলাম মির্জাপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলে জানা গেছে।

সুমির ভাই স্বপন মাহমুদ ও মা বেদানা বেগম জানান, গত ২২ মে ভোরে সুমি স্বামীর বাড়ি থেকে শিশুপুত্রসহ নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর সুমির বড় ম্বপন মাহমুদ ও ছোট ভাই দশম শ্রেণীর ছাত্র সজিব মাহমুদকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

সুমির স্বামী শরিফুল ইসলামের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এছাড়া থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফারুক ও মোঃ রফিক বলেন, এ ব্যাপারে একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। তবে ঘটনার সবকিছু মনে নেই। নিখোঁজ সুমির বড় ভাই স্বপন মাহমুদ ও ছোট ভাই সজিব মাহমুদকে কোন অভিযোগে আটক করা হয়েছিল তা জানতে চাইলে ব্যস্ত আছেন বলে মোবাইল ফোন কেটে দেন।

যশোরে চার মাদ্রাসা ছাত্র নিখোঁজ

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ হাফেজিয়া মাদ্রাসার ৪ ছাত্র নিখোঁজ হয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রদের অভিভাবক আলাদাভাবে কোতোয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। নিখোঁজ হওয়া শিক্ষার্থীরা হলো, মাগুরা সদর উপজেলার বলেশ্বরপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আলী হাসান রাব্বি (১১), শাহিন উদ্দিনের ছেলে জমির উদ্দিন (৮), যশোর সদরের রাজারহাট এলাকার তুহিন হোসেনের ছেলে আরাফাত (৯) ও আলী হোসেনের ছেলে শাওন (১১)। আরাফাত ও শাওন যশোর রাজারহাট মোল্লাপাড়া হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র।

সূত্র জানায়, আলী হাসান রাব্বি এবং জমির উদ্দিন যশোর সদরের কাজীপুর বলাডাঙ্গা হাফেজিয়া মাদ্রাসায় লেখাপড়া করত। সোমবার দুপুর একটার দিকে তারা দুইজন কাউকে কিছু না জানিয়ে নিরুদ্দেশ হয়। এরপর মাদ্রাসার অন্য ছাত্ররা বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর নিয়ে তাদের কোন সন্ধান করতে পারেনি। খবর পেয়ে ওই ছাত্রের বাড়ি থেকে লোকজন এসেও তাদের সন্ধান পায়নি। মঙ্গলবার রাতে আলী হাসান রাব্বি ও জমিরের পিতা কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।