১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিল্পী দম্পতির কণ্ঠে শত বাংলা গান

  • অঞ্জন আচার্য

সুদীর্ঘ চার দশক ধরে নিরন্তর সঙ্গীতচর্চায় নিমগ্ন আছেন শিল্পী দম্পতি বুরহান সিদ্দিকী ও রেহানা সিদ্দিকী। বিভিন্ন সময়ে দেশের অনেক গুণী গীতিকার ও সুরকারের অনেক গানে কণ্ঠ দিয়েছেন রেহানা সিদ্দিকী। কিন্তু সময়ের বিবর্তনে হারিয়ে গেছে তাঁর অনেক গানই। আর বুরহান সিদ্দিকী, যিনি এওয়াইবিআই সিদ্দিকী নামে সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা তথা আইজিপি ও সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, অবসরে এসে মনোনিবেশ করেছেন গানের রেকর্ডে। প্রতিষ্ঠা করেছেন আধুনিক স্টুডিও ‘সুরতাল’। এ শিল্পী দম্পতির কণ্ঠে ধারণকৃত বাংলা গানের সুবর্ণ সময়ের দুই শ’ গানের দুটি সিডি প্রকাশিত হলো। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর দ্য ডেইলি স্টার ভবনের এএস মিলনায়তনে সিডি দুটির প্রকাশনা উপলক্ষে বসে সঙ্গীত, সাংস্কৃতিক অঙ্গনসহ নানা পেশার মানুষের মিলনমেলা। অনুষ্ঠনে বিশিষ্টজনেরা এই শিল্পী দম্পতির গায়কীর প্রশংসার পাশাপাশি বাংলা গানের রেকর্ড সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সাধুবাদ জানান। উপস্থিত সুধীজনরা সম্মিলিতভাবে এ্যালবাম দুটির মোড়ক উন্মোচন করেন। তাঁদের মধ্যে ছিলেনÑ শিল্পী ফাহমিদা খাতুন, পাপিয়া সারোয়ার, তপন মাহমুদ, সাদিয়া আফরিন মল্লিক, ফাহিম হোসেন চৌধুরী, সালাহউদ্দিন আহমেদ, হাসিনা মমতাজ, জেড আই খান, ড. সা’দত হোসাইন, ড. বদিউল আলম মজুমদার, ড. মুহাম্মদ ইব্রাহিম, ড. এনামুল হক, মাসুদ আহমেদ, সৈয়দ সালাহউদ্দিন জাকী, খ ম হারুন, আনিসুর রহমান তনু, শরিফুজ্জামান পিন্টু প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন অভিনেত্রী শম্পা রেজা। অনুষ্ঠানে রেহানা সিদ্দিকীর দুটি ভিডিও সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানের মাঝে শিল্পী যুগল দ্বৈত কণ্ঠে শোনান ‘বেলা বয়ে যায়’ ও ‘ধন ধান্য পুষ্পভরা’ গান দুটি। গানের সঙ্গে মনোমুগ্ধকর নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যশিল্পী শেলী। এরপর সম্মিলিতভাবে এ্যালবাম দুটির মোড়ক উন্মোচন করেন বিশিষ্টজনেরা। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ‘বিত্তবৈভব হলে অনেকেই অনেক কিছু শখের বশে করে থাকেন। কিন্তু বুরহান সিদ্দিকী ও রেহানা সিদ্দিকী দম্পতি ভালবাসা ও দরদ দিয়ে গানের যে সাধনা অব্যাহত রেখেছেন, তার প্রতিদান তাঁরা পাবেন। এতে দেশের সঙ্গীতাঙ্গনও সমৃদ্ধ হবে।’ তাঁরা শিল্পী দম্পতির উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন। এদিকে শিল্পী বুরহান সিদ্দিকী বলেন, ‘আমার কাছে মেশিনের সামনে দাঁড়িয়ে রেকর্ডিংয়ের জন্য গান গাওয়া ভীষণ কঠিন কাজ মনে হয়Ñ কেননা মেশিন যে কোন শিল্পীর কমতিগুলোকেও রেকর্ড করে ফেলে। আমার মতো অনিয়মিত গায়কের পক্ষে একশ’টি গান রেকর্ড করা শুধু দুঃসাধ্যই ছিল না, বরং প্রায় অসম্ভব ছিল। এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন আমার স্ত্রী ও সহশিল্পী রেহানা সিদ্দিকীÑ তাঁর অসীম ধৈর্যশীল উৎসাহ ও নির্দেশনা দিয়ে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেকর্ডিস্ট মরহুম হোসেন আলী তাঁর জীবনের শেষ দিনটি পর্যন্ত আমার এ গানগুলো রেকর্ডিং-মিক্সিং করে গুছিয়ে দিয়ে গেছেন। তাই সদা হাস্যেজ্জ্বল, অনুজপ্রতিম সহকর্মী হোসেন আলীর স্মৃতির প্রতি আমাদের এ্যালবাম দুটি উৎসর্গ করেছি।’

অন্যদিকে শিল্পী রেহানা সিদ্দিকী বলেন, ‘সঙ্গীত জীবনের শুরুতে শ্রদ্ধেয় আবদুল আহাদসহ অনেক বিশিষ্ট সুরকারদের গান স্মৃতি থেকে হারিয়ে গেছে। যে গানগুলো সংগ্রহে আছে, তার মধ্য থেকে আধুনিক ও পঞ্চকবির সঙ্গীতসহ মোট একশটি গান নির্বাচিত করে একটি সিডিতে সংরক্ষণ করার পরিকল্পনা করেন আমার স্বামী ও সহশিল্পী বুরহান সিদ্দিকী। তাঁকে আমার পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ।’

বুরহান সিদ্দিকীর কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথের প্রেম, পূজা ও প্রকৃতি পর্যায়ের ১০০টি নির্বাচিত গান নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে ‘অরূপ তোমার বাণী’। আর রেহানা সিদ্দিকীর কণ্ঠে ধারণ করা হয়েছে ‘কিছু কথা কিছু স্মৃতি’ শিরোনামের ৬০টি মৌলিক আধুনিক ও দেশের গান এবং ৪০টি পঞ্চকবির গান। সুরতাল অডিও সেন্টারের ব্যানারে প্রকাশিত এ্যালবাম দুটির সঙ্গীত আয়োজন করেনÑ আনিসুর রহমান তনু, দৌলতুর রহমান, রেজোয়ান আলী লাভলু, ইফতেখার হোসেন সোহেল। প্রকৃতপক্ষে, চাকরির ব্যস্ততা এবং বেশ দীর্ঘ সময় দেশের বাইরে থাকা, এ সকল প্রতিবন্ধকতা সঙ্গীত থেকে বিচ্ছিন্ন করতে পারেনি শিল্পী দম্পতিকে। বাংলাদেশ দূতাবাস, আবুধাবিতে দায়িত্ব পালনকালে তাঁরা সেই দেশের রেডিও থেকে নিয়মিত বাংলা অনুষ্ঠান প্রচারের ব্যবস্থাপনায় রাখেন বিশেষ অবদান। রেহানা সিদ্দিকী ও বুরহান সিদ্দিকী বর্তমানে সমাজসেবায় নিয়োজিত থাকলেও সঙ্গীতকে কখনও ছেড়ে যাননি। অলাভজনক উদ্যোগ হিসেবে সঙ্গীতের বিভিন্ন ধারাকে সমাজে উপস্থাপন করাকে তাঁরা দেখেন সমাজসেবা হিসেবেই।