২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাঘ বাংলাদেশের নিজস্ব ঐতিহ্য নয় ॥ বনমন্ত্রী

বাঘ বাংলাদেশের নিজস্ব ঐতিহ্য নয় ॥ বনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাঘ বাংলাদেশের নিজস্ব ঐতিহ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। তিনি বলেছেন, দেশের উত্তরাঞ্চলের তুলনায় দক্ষিণাঞ্চলের মাটি নতুন। ওই খানে বাঘ মাইগ্র্যান্ট (অভিবাসী) প্রাণী হিসেবে এসেছে। খুলনা এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে বাঘ সংরক্ষণের ব্যাপারে কোন উপলব্ধি তৈরি হয় নি।তাই বাঘ সংরক্ষণে সবার আগে প্রয়োজন দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে বিশ্ব বাঘ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী মন্তব্য করেন। বিশ্ব ব্যাংকের সহযোগিতায় বন অধিদপ্তর এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তফা ফিরোজ সুন্দরবনের বাঘ বিষয়ে একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। প্রবন্ধে তিনি বলেন, সুন্দরবনে বাঘের প্রকৃত সংখ্যা নির্ণয় করা কঠিন। ১৯৬৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত সুন্দরবনে পরিচালিত বিভিন্ন জরিপে বাঘের সংখ্যা ছিল ৫০ থেকে ৪৫০ এর মধ্যে। তবে নানান সীমাবদ্ধতার দরুণ এসব জরিপের কোনোটিরই চূড়ান্ত গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়নি। কারণ এসব জরিপের অধিকাংশ করা হয়েছে সুন্দরবনের মাত্র ১০ শতাংশ এলাকায়। সর্বর্শেষ ক্যামেরা ট্র্যাপিং জরিপটি করা হয়েছে বনের ৪০ শতাংশ এলাকায়। তবে সুন্দরবনে বাঘের অস্তিত্ব বর্তমানে সংকটাপন্ন এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই। সুন্দরবন রক্ষায় জাতীয় পর্যায়ে সর্বোচ্চ স্তর থেকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

প্রধান বন সংরক্ষক ইউনুছ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পরিবেশ ও বনউপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, বিশ্ব ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি হেড ক্রিস্টিন ই কাইমস ও প্রধান বন সংরক্ষক মো. আকবর হোসেন। বন সংরক্ষক মো. আকবর হোসেন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। আলোচনা সভার পর জাতীয় বৃক্ষমেলা উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করা হয়।