২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজাকার সোলায়মানকে সেফহোমে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক শরীয়তপুরের রাজাকার সোলায়মান মোল্লা ওরফে সলেমান মৌলবিকে সেফহোমে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। একইসঙ্গে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর তার ও ইদ্রিস আলী সরদারের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করা হয়েছে।

সোলায়মান-ইদ্রিস একই মামলার আসামি। ট্রাইব্যুনালের নির্দেশে গত ১৪ জুন রাতে শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে সোলায়মান মোল্লাকে(৮৫) গ্রেফতার করা হলেও ইদ্রিস আলী সরদার পলাতক। ওইদিনই সকালে তাদের দু’জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল।

গত ২৮ জুলাই দুই আসামির বিরুদ্ধে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল ও ২৩ জুলাই সোলায়মান মোল্লাকে ধানমণ্ডিতে তদন্ত সংস্থার কার্যালয় সেফহোমে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতির আবেদন জানান প্রসিকিউটর ঋষিকেশ সাহা। বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) শুনানি শেষে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি ও ৩০ সেপ্টেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহীমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল।

২০১০ সালে শরীয়তপুরের যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ তালুকদার সোলায়মান মোল্লা ও ইদ্রিস আলী সরদারসহ আরও সাতজন রাজাকারের (এদের অনেকেই মারা গেছেন) বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের নেতৃত্বে শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া, কাশাভোগ, মানোহর বাজার, মধ্যপাড়া, ধানুকা, রুদ্রকরসহ হিন্দু প্রধান এলাকাগুলোতে ব্যাপক অগ্নিসংযোগ ও হামলা চালায় রাজাকাররা। তারা মাদারীপুরের এআর হাওলাদার জুট মিলে রাজাকার হিসেবে অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ নেন। তাদের সহায়তায় পাকিস্তানি সেনারা এলাকার কয়েকশ’ নারী-পুরুষকে গুলি করে হত্যা করে। নারীদের হত্যার আগে ক্যাম্পে নিয়ে পৈশাচিক নির্যাতন চালানোরও অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।