২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফখরুলসহ ২০ নেতাকর্মীর অব্যাহতির শুনানি ৩০ আগস্ট

  • পুলিশ হত্যা মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর বাংলামোটর মোড়ে পুলিশ কনস্টেবল নিহত হওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ২০ নেতাকর্মীর অব্যাহতির শুনানির জন্য ৩০ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত।

অব্যাহতির শুনানির জন্য বৃহস্পতিবার দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার নথিপত্র উপস্থাপন না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম আমিনুল হক এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে, ১৭ জুন অব্যাহতির শুনানির জন্য ৩০ জুলাই দিন ধার্য করেন আদালত। ওই সময় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হাজির না হওয়ায় নতুন দিন ধার্য করা হয়।

এরও আগে, ১৭ মে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. বাহাউদ্দিন ফারুকী আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণের মতো সাক্ষ্যপ্রমাণ না পাওয়ায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিসহ ২০ জনকে অব্যাহতির দানের প্রার্থনা করে আদালতে অভিযোগপত্র্র দাখিল করেন।

মির্জা ফখরুল ছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, বরকত উল্লাহ বুলু, যুবদলের সেক্রেটারি সাইফুল আলম নিরব, জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ড. সফিকুর রহমান, ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. সফিকুল ইসলাম মাসুদসহ ২০ জনকে অব্যাহতি প্রদানের আবেদন করা হয়।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ২০১৩ সালে ২৪ ডিসেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার লংমার্চ ফর ডেমোক্রেসি কর্মসূচি ঘোষাণার পর রাত ১১টা ২০ মিনিটে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ১৮ জনের নির্দেশে অজ্ঞাতানামা দুই মোটরসাইকেল আরোহী বাংলামোটর ট্রাফিক পুলিশ বক্সের অদূরে থাকা পুলিশের রিকুইজিশন বাসে পেট্রোলবোমা ও হাতবোমা নিক্ষেপ করে। এতে বাসে আগুন ধরে গেলে ট্রাফিক কনস্টেবল ফেরদৌস খলিল মারা যান। কনস্টেবল ফাইজুল ইসলাম ও বাসচালক মো. বায়েজিত গুরুতর দগ্ধ হন।

ওই ঘটনায় ২০১৩ সালের ২৫ ডিসেম্বর রমনা থানায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক নাজমুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

২০১৫ সালের ১৭ মে ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. বাহাউদ্দিন ফারুকী ওই মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেন।