২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগ করুন ॥ কুয়েতকে হাসিনা

বাংলাদেশের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুয়েত সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং বিভিন্ন খাতে আরও বিনিয়োগ চেয়েছেন।

এ ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী আশা করেন, কুয়েত ফান্ড ফর এরাবিক ইকোনমিক ডেভেলপমেন্টের (কেএফএইডি) মাধ্যমে কুয়েত অর্থায়ন বাড়াবে। কুয়েতের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত আলী আহমেদ ইব্রাহীম আল-দাফিরি বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তেজগাঁওয়ের অফিসে বিদায়ী সাক্ষাত করলে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন। খবর বাসসর।

বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ঢাকায় পাঁচ বছরের মেয়াদে সফলভাবে দায়িত্ব পালনের জন্য প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান এবং দুই দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নে সক্রিয় ও দৃশ্যমান ভূমিকা রাখার জন্য তার প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ সর্বদা কুয়েতের পাশে আছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ বিভিন্ন খাতে আরও বিনিয়োগ আশা করে। বিদ্যুত খাতসহ কিছু খাত ইতোমধ্যেই নির্ধারণ করা হয়েছে যেখানে দুই দেশ বড় ধরনের সহযোগিতার সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারে।

ঢাকা সফরের জন্য কুয়েতী আমিরকে বাংলাদেশের আমন্ত্রণের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আশা করেন, সুবিধাজনক সময়ে আমির ঢাকা সফরে আসবেন।

প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশের অগ্রগতির কথা তুলে ধরেন। রাষ্ট্রদূত শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশ ভালভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি আশা করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আরও অগ্রগতি অর্জন করবে।

১৯৯০ সালে ইরাকের আগ্রাসনের সময় কুয়েতকে সমর্থন দেয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশই প্রথম দেশ যে কুয়েতকে সহযোগিতা দেয়।

রাষ্ট্রদূত জানান,বাংলাদেশ ও কুয়েতের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা শুরু হচ্ছে এবং বর্তমানে সেনাবাহিনীর প্রায় ৫ হাজার সদস্য কুয়েতে পুনর্গঠন কাজ করছে।

রাষ্ট্রদূত চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ সংস্কারে ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের চেক হস্তান্তর করেন।