১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাসমতী চালে বাঘের আকর্ষণ

  • জাফর ওয়াজেদ

পাকিস্তান থেকে আমদানি করা বাসমতী চালের সুগন্ধ টেনে নেয় কতশত ভোজনরসিককে। বিয়ে বাড়ির রান্নায় আজকাল বাসমতী চালের কদর বেড়েছে বিত্তবানদের কাছে। অত্যধিক দাম এই চালের অথচ চালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দূষক হলো বাসমতী। এই চালে গ্রীনহাউস গ্যাস সব থেকে বেশি। অথচ রসনায় তৃপ্তি যোগায় এই চাল। এই চালের সুগন্ধ বিষয়ে নয়া তথ্য আবিষ্কার হয়েছে। বাঘে ও বাসমতীতে বেশ মিল পাওয়া গেছে।

সুন্দরী গাছ, হরিণ, কুমির আর হেঁতারের বন নিয়েই সুন্দরবন। আর রয়েছে অজস্র নদী-নালা-খাল। রয়েছে রয়েল বেঙ্গল টাইগার। ইচ্ছে হলেই ঘুরে আসা যায়। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে বিভক্ত হয়ে আছে সুন্দরবন। বাঘের শরীরের বোঁটকা গন্ধও হয়ত নেয়া যায়। বাঘ দেখার যদি সৌভাগ্য নাও হয়, নদীর চরের নরম পলিতে বাঘের পায়ের টাটকা ছাপ দেখা যাবেই। সুন্দরবন এখন লঞ্চে ভেসে পিকনিক করার স্পট। পর্যটন খাতে আয়ও কম নয়।

‘এগ্রিকালচার, ইকোসিস্টেম এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট’ নামক পত্রিকায় প্রকাশিত তাদের গবেষণাপত্রে দেখা যায়, বাঘ ও বাসমতীর রাসায়নিক সংযোগ খুব কাছাকাছি। বাঘেরা তাদের মিলন ঋতুতে সঙ্গিনীকে গন্ধ দিয়ে আকর্ষণ করার জন্য যে ফেরোমন নিঃসরণ করে, তার রাসায়নিক নাম ২অচ বা এ্যাসিটাইল-পাইরোলাইন। গবেষকরা আরও জেনেছেন যে, এটি আসলে একই রাসায়নিক পদার্থ, যা আবার বাসমতী চালের সুগন্ধর জন্য দায়ী। আর এই সুগন্ধ দূষক গ্রীনহাউস গ্যাসের জন্ম দেয়।

যারা সুন্দরবনে বেড়াতে যান, পিকনিক করুন, ক্ষতি নেই। কিন্তু বেড়াতে গিয়ে বাসমতী চালের ভাত বা বিরিয়ানি খাবার বিলাসিতা না করাই শ্রেয়।