১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কোথাও দুর্নীতি হলে জড়িতদের নাম পাঠান

  • ‘লেটস টক’ অনুষ্ঠানে সজীব ওয়াজেদ জয়

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, লক্ষ্যের ছয় বছর আগেই নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের কাতারে উন্নীত হয়ে বাংলাদেশ সারাবিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে যে, এ দেশের মানুষ নিজেরাই নিজেদের এগিয়ে নিতে পারে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের মানুষ বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে, আমরা পারি, নিজেরাই পারি, দেশবাসীকে এগিয়ে নিতে পারি।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ‘লেটস টক’ নামে এক অনুষ্ঠানে দুই শতাধিক তরুণের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জয় আরও বলেন, আমরা জানতাম যে এটা অর্জন করব, শুনেছি এটা হবে। শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণার বাকি ছিল। আমরা বিশ্বব্যাংকের পরিসংখ্যানের অপেক্ষায় ছিলাম। আগে থেকেই খবর পেয়েছি, আমাদের পরিসংখ্যানও সবদিক থেকে পৌঁছে গেছে। ‘লেটস টক উইথ সজীব ওয়াজেদ জয় অন বাংলাদেশ এ্যাচিভিং মিডল ইনকাম স্ট্যাটাস’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে সেন্টার ফর রিসার্চ এ্যান্ড ইনফর্মেশন (সিআরআই)।

তিনি বলেন, আমাদের ওয়াদা ছিল, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করব। নিম্ন মধ্যম আয়ে পৌঁছেছি; তবে সেই ২০২১ সালের ছয় বছর আগেই। এ জন্য আমরা সবাই গর্বিত। তিনি বলেন, পঁচাত্তরের পর বাংলাদেশের উন্নয়নের গতি এত সেøা ছিল যে, কেউ ভাবতেও পারেনি বাংলাদেশ এত দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন, সঠিক নেতৃত্ব পেলে এই জাতি যেমন পরাধীনতার শিকল ছিঁড়ে মুক্তি ছিনিয়ে আনতে পারে তেমনি সঠিক নেতৃত্ব পেলে সব বাধাবিপত্তি উপেক্ষা করে সামনের দিকে এগিয়েও যেতে পারে। ইতোমধ্যে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তা বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে এ দেশের মানুষ।

দুর্নীতি প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র বলেন, আওয়ামী লীগ দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয় না। বাংলাদেশে আগের চেয়ে দুর্নীতি অনেকে কমেছে। এটা আওয়ামী লীগ সরকারের একটা বড় অর্জন। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলের দেশকে দুর্নীতিতে পর পর ৫ বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করার উদাহরণ তুলে ধরে তিনি বলেন, দল ও সরকারের কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুর্র্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। দেশের কোন স্থানে দুর্নীতি হলে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের নাম উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, দুর্নীতি দমন কমিশন ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে লিখিতভাবে অভিযোগ জমা দেয়ার জন্যও সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতেও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সারাদেশের সব এলাকায় সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ দমনে শেখ হাসিনার সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমরা মাদক ও দুর্র্নীতিমুক্ত সমাজ গড়তে কাজ করছি। এজন্য জনগণকে সচেতন করতে সবাইকে কাজ করতে হবে।

আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে নেয়া বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, আমরাও আশ্চর্য হয়েছি। এটা (ছয় বছর আগে এ অর্জন) একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। বিশ্বের সবচেয়ে দরিদ্র দেশ থেকে আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছি। এ অর্জনের কৃতিত্ব আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিয়ে জয় বলেন, এসব কিছুর পরিকল্পনা ছিল একজনের। গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে জেলে বসেই তিনি সবকিছু পরিকল্পনা করেছিলেন। জনগণের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় গিয়ে তিনি তা বাস্তবায়ন করেছেন। আর তিনি হচ্ছেন শেখ হাসিনা। আপনারা দেখেছেন, যেখানেই বাধাবিপত্তি এসেছে প্রধানমন্ত্রী তার তাৎক্ষণিক সমাধান দেয়ার চেষ্টা করেছেন। দেশী-বিদেশেী বিভিন্ন মহলের ষড়যন্ত্র ছিল, সেগুলোও অত্যন্ত বিচক্ষণতার সঙ্গে তিনি মোকাবেলা করেছেন।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের শুরুতে বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, মাথাপিছু আয়ের ভিত্তিতে তাদের সূচকে বাংলাদেশ একধাপ এগিয়ে নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের কাতারে এসেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করলেও সেই লক্ষ্য অর্জিত হলো ছয় বছর আগেই। আর এই ইস্যুতেই তরুণদের নিয়ে এ আলোচনার আয়োজন করেছিল সিআরআই।