২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অবলুপ্ত ছিটমহলবাসীর প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নতুন পতাকা ও মানচিত্র পাওয়া ছিটমহলবাসীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার রাতে পৃথক পৃথক বার্তায় তারা এ অভিনন্দন জানান।

রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মোঃ জয়নাল আবেদীন জানান, এক অভিনন্দন বার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেছেন, দীর্ঘ ৬৮ বছরের অমীমাংসিত স্থল সীমানা জটিলতা নিরসনের পর ছিটমহল বিনিময় দুই দেশের জন্য ঐতিহাসিক মুহূর্ত। রাষ্ট্রপতি এ উপলক্ষে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

অভিনন্দন বার্তায় আবদুল হামিদ বলেন, ১৯৭৪ সালে ইন্দিরা-মুজিব চুক্তির মধ্য দিয়ে স্থল সীমানা নির্ধারণের যে শুভসূচনা হয়েছিল ২০১৫ সালে বাংলাদেশ-ভারতের ঐকান্তিক ইচ্ছায় তা বাস্তবায়িত হলো। এর ফলে ছিটমহলবাসীদের নাগরিকত্ব ও পরিচয়ের পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করেন রাষ্ট্রপতি। একই বার্তায় তিনি ছিটমহল বিনিময়ের কাজে সম্পৃক্ত সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

দীর্ঘ অপেক্ষার পর ছিটমহলবাসী তাদের নিজ জাতিসত্তার স্বীকৃতি পাওয়ায় তাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার রাতে এক অভিনন্দন বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘ ৬৮ বছর পর ছিটমহলের অধিবাসীরা তাদের পরিচয়, নির্দিষ্ট ভুখ-ে বসবাসের সুযোগ এবং প্রিয় মাতৃভূমির জাতীয় পতাকা ও মানচিত্র পেয়েছেন। যা অত্যন্ত আনন্দের। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের অন্য নাগরিকদের সঙ্গে এখন আর ছিটমহলবাসীর কোন পার্থক্য নেই। তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে যে ধরনের প্রকল্প নেয়া দরকার সরকার সব রকমের ব্যবস্থাই করবে। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের প্রেস উইং এ তথ্য জানিয়েছে।