২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৪০ হাজার কোটি ডলারের মার্কিন জঙ্গীবিমান এফ-৩৫বি

  • মেরিন কোর পাচ্ছে এই বিতর্কিত বিমান

যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কোর, যারা নিজেদের রণাঙ্গনের ‘সামনের কাতারে থেকে যুদ্ধ করার’ বাহিনী বলে গর্ব করে থাকেÑ তারা একটি নতুন অস্ত্র পেতে যাচ্ছে। শুক্রবার কোরের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে, তাদের এফ-৩৫ জয়েন্ট স্ট্রাইক যুদ্ধবিমানের একটি নতুন সংস্করণকে অবশেষে যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বেশ কয়েক বছরের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও উন্নয়ন সাধনের পর এই নতুন ধরনের বিমান তৈরির ঘোষণা এলো। এটি মাঝেমধ্যে ঝামেলায় জড়ানো, প্রায়শ সমালোচিত এবং সর্বদাই বিতর্কিত ৪০ হাজার কোটি ডলারের কর্মসূচী বাস্তবায়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক। মূল সময়সূচীর চেয়ে এর বাস্তবায়নে কয়েক বছর দেরি হয়েছে এবং মূল বাজেটের চেয়ে কয়েক শ’ কোটি ডলার বেশি ব্যয় হয়েছে। -খবর ওয়াশিংটন পোস্টের।

মেরিন কোর এক বিবৃতিতে বলেছে, এই ঘোষণার অর্থ হলো আরিজোনার জুমায় মেরিন ফাইটার এ্যাটাক স্কোয়াড্রন ১২১-এর সঙ্গে মোতায়েন করা ১০এফ-৩৫বি বিমান স্কোয়াড্রন এখন ‘বিশ্বব্যাপী মোতায়েনের জন্য প্রস্তুত’ হয়ে আছে। মেরিন কোরের কমান্ডেন্ট জোসেফ ডানফোর্ড এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে বলেন, রাডার ফাঁকি দেয়া গোপনে উড্ডয়নে সক্ষম এই ফিফ্থ জেনারেশন যুদ্ধবিমান ‘আমাদের যুদ্ধ করার এবং জয়ী হওয়ার পদ্ধতির মোড় ঘুরিয়ে দেবে।’ পেন্টাগন এবং বেথেসডাভিত্তিক বিমানের প্রস্তুতকারক কোম্পানি লকহিড মার্টিনের কর্মকর্তারা এই ঘোষণায় আনন্দ প্রকাশ করে বলেছেন, ওই কর্মসূচী যে পূর্ববর্তী ঝামেলা কাটিয়ে উঠেছে এটি তারই প্রমাণ এবং এটি সামরিক অভিযানের জন্য প্রস্তুত ও উপযোগী অবস্থায় আছে। কর্মসূচীর নির্বাহী কর্মকর্তা বিমানবাহিনীর লে. জেনারেল ক্রিস্টোফার বোগদান বলেন, এই বিমানের নেপথ্যের টিমটিকে বেশকিছু চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করতে হয়েছে। তবে তিনি বলেন, তাঁর মনোযোগ নিবন্ধ ছিল একটি গোপন যুদ্ধবিমানের যোগান দেয়া, যেটি শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিতে উড়তে পারবে, ভেতরে অস্ত্র বহন করতে, স্বল্প সময়ে উড়তে ও খাড়াভাবে অবতরণ করতে পারবে। নতুন যুদ্ধবিমান পেন্টাগনের এ পর্যন্ত সংগ্রহ করা সবচেয়ে ব্যয়বহুল অস্ত্রসম্ভার। এটি অবশ্য এখনও অনেক সমালোচকের কাছ থেকে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে। কংগ্রেস সদস্যবৃন্দ সম্প্রতি ডানফোর্ডকে, যিনি জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের নতুন চেয়ারম্যান পদে মনোনীত প্রার্থী-কর্মসূচী প্রশ্নে অনেক প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন।

ডানফোর্ড শুক্রবার বলেন, এই বিমান সম্পর্কে তার পূর্ণ আস্থা আছে। এটি বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে সক্ষম। এরমধ্যে আছে খুব কাছ থেকে ছত্রছায়া দেয়া, আক্রমণাত্মক ও প্রতিরক্ষামূলক পাল্টা হামলা, বিমান চলাচল নিষিদ্ধকরণ ব্যবস্থা, বিমান হামলায় সহায়তা দান ও সশস্ত্র অবস্থায় শত্রুর তথ্যানুসন্ধান।