২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৮ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মোট ৮টি কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। কোম্পানিগুলো হলো : স্কয়ার টেক্সটাইল, ম্যাকসন্স স্পিনিং, ম্যাকসন্স স্পিনিং, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, কনফিডেন্স সিমেন্ট, কনফিডেন্স সিমেন্ট, বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো সিনথেটিকস ও ইউনাইটেড পাওয়ার।

স্কয়ার টেক্সটাইল ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে স্কয়ার টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৪৭ টাকা, শেয়ার প্রতি সমন্বিত কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) ৪.৮৬ টাকা এবং সমন্বিত শেয়ার প্রতি সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৪০.৫৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.৪১ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ২.৩২ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ৩৯.৯৩ টাকা। সেই হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.৪৪ টাকা বা ১৫.১২ শতাংশ।

ম্যাকসন্স স্পিনিং ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে ম্যাকসন্স স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.৮১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৯.০৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৬৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.২৬ টাকা এবং ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ১৮.৮৪ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.১২ টাকা।

লিগ্যাসি ফুটওয়্যার ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে লিগ্যাসি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১০ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.০৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.৭২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.১৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.০৩ টাকা।

কনফিডেন্স সিমেন্ট ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে কনফিডেন্স সিমেন্টের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৩৮ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৬.৮০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৬৫.৩০ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩.৫০ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ২.৮০ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ৬৪.৪২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.১২ টাকা।

গত তিন মাসে (এপ্রিল-জুন ১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.৩৭ টাকা।

জেএমআই সিরিঞ্জ ॥ চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস ১ দশমিক ৮৩ টাকা হয়েছে। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস হয়েছিল ১ দশমিক ৭০ টাকা।

অপরদিকে চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে অর্থাৎ অর্ধবার্ষিকীতে (জানুয়ারি-জুন) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ দশমিক ৪৫ টাকা, শেয়ার প্রতি নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ১ দশমিক ৯৩ টাকা, শেয়ার প্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) ৫১.২৬ টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ইপিএস ২ দশমিক ২২ টাকা, এনওসিএফপিএস ৮ দশমিক ৮৮ টাকা এবং এনএভি ৪৮ দশমিক ৮৬ টাকা। শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) আগের বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ৮ শতাংশ বেড়েছে।

বেক্সিমকো লিমিটেড ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকোর শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) ১৪.৫৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৭৩.৫১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১৮.৯৫ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর ১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ৮৩.৯৩ টাকা। সেই হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১৫ টাকা বা ৩৯.৪৭ শতাংশ।

বেক্সিমকো সিনথেটিকস ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকো সিনথেটিকসের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) ০.০৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৪.২৯ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.০৮ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর ১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ২৪.৭২ টাকা।

ইউনাইটেড পাওয়ার ॥ দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইউনাইটেড পাওয়ারের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৫৭ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৫.০৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩২.০২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩.২২ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৩.৫১ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ২৬.৭৯ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১.৩৫ টাকা।