২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সৈয়দ আশরাফের বক্তব্যে বিএনপি হতাশ ॥ রিপন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই হবে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের এমন বক্তব্যে বিএনপি এবং পুরো জাতি হতাশ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। তিনি বলেন, এ বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সৈয়দ আশরাফ শঙ্কা জাগিয়ে তুলেছেন যে, দেশে আবারও ৫ জানুয়ারির মতো ভোটারবিহীন সরকার গঠিত হবে। শনিবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, ছিটমহলের ৫২ হাজার মানুষের মুক্তির আনন্দের সঙ্গে বিএনপিও আনন্দিত। বিএনপি ভুল বুঝতে পেরে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ইস্যু থেকে সরে এসেছে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের এমন বক্তব্যের জবাবে রিপন বলেন, সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক হোক, আর যে নামেই হোক, দেশে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দরকার। আমরা কোন জিদ ধরে বসে থাকিনি। তত্ত্বাবধায়ক সরকার কিংবা কেয়ারটেকার সরকার এই দুটি শব্দের ওপর ‘স্টিকড’ হয়ে আমরা বসে থাকিনি। তাই খালেদা জিয়া বলেছেন নির্বাচনকালীন সময়ে এক ধরনের নিরপেক্ষ সরকার থাকতে হবে। কারণ ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না।

রিপন বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে শতকরা পাঁচজন লোকও ভোট দেননি। সে নির্বাচন ছিল ভোটারবিহীন। এ ধরনের নির্বাচনে গঠিত সরকার নির্বাচিত সরকার হিসেবে পরিগণিত হয় না। তিনি বলেন, বিএনপি শাসকদলকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে এবং আশ্বস্ত করছে যে, দেশে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের পর আমরা ক্ষমতায় গেলে তাদের মতো প্রতিহিংসার রাজনীতি করব না। কারণ, বিএনপি কোন গেরিলা দল নয়। বিএনপি কোন বিপ্লবী দলও নয়।

গণতন্ত্র উত্তরণে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের উদ্যোগকে সমর্থন করে রিপন বলেন, আমরা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় যে কোন উদ্যোগকে স্বাগত জানাই, সমর্থন করি ও সাধুবাদ জানাই। আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তসহ সরকারের সরকারী দলের নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে রিপন বলেন, ‘সুরঞ্জিত ও গম কেলেঙ্কারির হোতাসহ অন্যদের দুর্গতির কারণ কি?’ তাদের মতো অন্যদেরও আয়নার সামনে দাঁড়াতে আমরা আহ্বান জানাই। একই সঙ্গে সুরঞ্জিত সেনদের বিএনপির জন্য মায়াকান্না না করার আহ্বান জানাই।