২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ছন্দ ধরে রাখাই চ্যালেঞ্জ ॥ সাকিব

ছন্দ ধরে রাখাই চ্যালেঞ্জ ॥ সাকিব
  • টেস্ট ক্রিকেটের ক্ষেত্রে ম্যাচের মধ্যে দীর্ঘ এ বিরতি ক্রিকেটারদের ছন্দ এবং মনোযোগ ব্যাঘাত ঘটায়

মোঃ মামুন রশীদ ॥ মিরপুর টেস্টে টানা দু’দিন বৃষ্টির কারণে পণ্ড হয়েছে। শুক্রবার দ্বিতীয় দিন হোটেল থেকেই বের হননি বাংলাদেশ কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা। তবে শনিবার সকাল থেকে বৃষ্টি থেমে গিয়ে রোদও উঠেছিল। মাঠ প্রস্তুত না হওয়ার কারণে দেরিতেই মাঠে এসেছিলেন ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশ দল ‘হোম অব ক্রিকেট’ শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ফুটবলও খেলেছেন হালকা ওয়ার্মআপ করার জন্য। কিন্তু প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ব্যাট-বলের লড়াইয়ে নামা সম্ভব হয়নি। বৃষ্টি হানা দিয়েছে দুপুর থেকে আবারও। সে কারণে তৃতীয় দিনও কোন বল মাঠে গড়াল না। টেস্ট ক্রিকেটের ক্ষেত্রে ম্যাচের মধ্যে দীর্ঘ এ বিরতি ক্রিকেটারদের ছন্দ এবং মনোযোগ ধরে রাখার জন্য ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। মনোসংযোগটা ধরে রাখা বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন বিশ্বসেরা টেস্ট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল হতাশাজনক। তবে সুযোগ পেলে দ্বিতীয় ইনিংসে ভুল শোধরানোর চেষ্টা থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মিরপুর টেস্টের প্রথম দিন ঝলমলে রোদে খেলা হয়েছে। কিন্তু এরপর টানা দু’দিন বৃষ্টিতে ভেসে গেছে। পাঁচদিনের টেস্ট ক্রিকেটে এ দীর্ঘ বিরতি ক্রিকেটারদের ছন্দ নষ্ট করে এবং খেলার প্রতি মনোসংযোগের ব্যাঘাত সৃষ্টি করে। সেটা ধরে রাখাও প্রতিটা ক্রিকেটারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘এই অবস্থায় মনোসংযোগ ধরে রাখা জরুরী। আসলে এই ব্যাপারটা একেকজনের কাছে একেকরকম। কেউ যেমন নিজের মতো করে জিম করে প্রস্তুতি নেন। কেউ হয়ত নেটে অনুশীলন করেন। কেউবা নিজের হোটেল রুমেই সময় কাটান।’ বৃষ্টির কারণে ব্যাট-বলের লড়াই না হওয়াতে টাইগাররা বেশ হতাশ। এ বিষয়ে এ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেন, ‘বৃষ্টিটা আসলে খুবই হতাশাজনক ব্যাপার। আর এটা এমন একটা বিষয় যেখানে আসলে আমাদের কিছুই করার নেই।’ তবে বৃষ্টি নামার আগপর্যন্ত বাংলাদেশের অবস্থা তেমন সুবিধার ছিল না। চলমান টেস্টে প্রথম দিনেই ৮ উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ মাত্র ২৪৬ রান তুলতেই। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে সুযোগ পেলে ভুল শোধরাতে সচেষ্ট থাকবেন দলের ক্রিকেটাররাÑ এমন দাবি করে সাকিব বলেন, ‘ব্যাটিংয়ে ভাল সূচনা দরকার ছিল। সেটা হয়নি। আরও দুই উইকেট আমাদের হাতে আছে। এটা নিয়ে আর কতদূর যাওয়া যায় সেটাই এখন দেখার বিষয়। কিন্তু আরেকবার ব্যাটিং করার সুযোগ পেলে আগের ভুলগুলো শুধরে নিতে হবে।’

আবহাওয়া এবার টেস্ট সিরিজে অনেক বড় ভূমিকা পালন করেছে। উইকেট শুরুতে যেমন ছিল, বৃষ্টির কারণে সেটার অবস্থাতেও এসেছে পরিবর্তন। মিরপুর টেস্টেও টানা দু’দিন বৃষ্টির কারণে উইকেট ও পরিবেশে আসবে বৈচিত্র্য। শুরুতে যে চরিত্র ছিল সেভাবে উইকেট নাও কাজ করতে পারে। বোলারদের দায়িত্বটাই বাড়বে বলে মনে করেন সাকিব। তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘এখন ম্যাচের যা অবস্থা তাতে বড় একটা ভূমিকা বোলারদেরই পালন করতে হবে। বলা যায়, আমরা এখন বোলারদের দিকেই তাকিয়ে আছি।’ প্রথমে বোলিং করে সুন্দর ও আলো ঝলমল পরিবেশে দারুণ বোলিং করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। পেসার এবং স্পিনাররা সমানভাবে ভূমিকা রেখেছেন বাংলাদেশের ইনিংসে ধস নামানোর ক্ষেত্রে। বিশ্বসেরা টেস্ট বোলার ডেল স্টেইন তাঁর গতি ও সুইং দিয়ে তিনটি এবং অনিয়মিত স্পিনার হয়েও দারুণ কার্যকর বোলিং করে জেপি ডুমিনি তিনটি উইকেট শিকার করেছেন। প্রথম দিনশেষে বাংলাদেশের টপঅর্ডার মুমিনুল হক বলেছিলেন, ‘দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয় দিন থেকে উইকেট স্পিনারদের জন্য সহায়ক হয়ে উঠবে।’ তবে টানা দু’দিন বৃষ্টির পর উইকেট কী আচরণ করে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

নির্বাচিত সংবাদ