২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আরও অনেক দিন খেলতে চাই

আরও অনেক দিন খেলতে চাই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মাত্র তিন দিনেই আত্মসমর্পণ। বার্মিংহামে এ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরে গেছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। মর্যাদার এ লড়াইয়ে সিরিজে ইতোমধ্যেই ইংল্যান্ড এগিয়ে গেছে ২-১ ব্যবধানে। এর চেয়েও বড় কথা দীর্ঘদিন ধরে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে অস্ট্রেলিয়ান ভক্ত-সমর্থকদের হতাশ করেই চলেছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। তৃতীয় টেস্টেও তিনি ব্যাট হাতে ১০ ও ৩ রান করেছেন এবং একটি ক্যাচ হাতছাড়া করেছেন। এ কারণে ভবিষ্যতে অসি একাদশে ঠাঁই পাওয়া নিয়েই প্রশ্নের সম্মুখীন এখন ক্লার্ক। তবে তিনি নিজেই দাবি করেছেন এখনও অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দীর্ঘদিন খেলার সামর্থ্য রয়েছে তাঁর। চতুর্থ টেস্টে ব্যাটিং অর্ডারে আরও কিছুটা নিচে নেমে খেলার পরিকল্পনাও করছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তৃতীয় টেস্ট শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

টানা দশটি টেস্ট ইনিংসে ব্যাট হাতে বড় কোন ইনিংস খেলতে পারেননি অসি অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। নেই কোন অর্ধশতকের ইনিংসও। সর্বশেষ গত বছর ডিসেম্বরে সফরকারী ভারতের বিরুদ্ধে এ্যাডিলেইডে ১২৮ রানের ঝকঝকে শতক হাঁকিয়েছিলেন। কিন্তু এরপর থেকেই ব্যাটে রানখরা তাঁর। সেই সঙ্গে চলমান এ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ড সফরে তেমন ভাল কিছু করতে পারছে না অসিরা। স্লিপ অঞ্চলে অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে স্বীকৃত, সেখানেও সম্প্রতি ফিল্ডিংটা তেমন ভাল করতে পারছেন না ক্লার্ক। সবদিক বিবেচনা করে তাঁর একাদশে থাকার যোগ্যতা এখনও আছে কিনা সেটা নিয়েও বিতর্ক শুরু হয়েছে। নিজের অবস্থানটা সম্পর্কেও বেশ ভালভাবেই উপলব্ধি করতে পারছেন অসি অধিনায়ক। এ বিষয়ে ক্লার্ক বলেন, ‘তারা দলে ১১ জন পেয়েছে কিন্তু আমরা সেখানে মাত্র ১০ জন! আর এক্ষেত্রে যে কোন প্রতিপক্ষকে হারিয়ে দেয়া সবসময়ই কঠিন হয়ে যায়। এই মুুহূর্তে নিজের ব্যাপারে এটাই অনুভব করছি। সম্প্রতি আমার নৈপুণ্য বিচার করলে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্বটা দিতে পারছি না অথচ অধিনায়ক হিসেবে সেটাই আমার করণীয়। অধিনায়কের দায়িত্ব বলতে আমি সবসময়ই উপলব্ধি করি বড় ইনিংস খেলে দলকে এগিয়ে নেয়ার উদাহরণ সৃষ্টি করা উচিত।’ যেহেতু চার নম্বর পজিশনে ব্যাট হাতে দীর্ঘদিন রান পাচ্ছেন না, সে কারণে এখন নতুন কিছু চিন্তা করছেন ক্লার্ক। আরেকটু নিচে নেমে ব্যাটিং করার ভাবনাটা শুরু করে দিয়েছেন সেজন্য। এ বিষয়ে ক্লার্ক বলেন, ‘চার নম্বর পজিশনটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখানে আপনার নিশ্চিত করতে হবে যে ভাল একটি ইনিংস খেলতে সক্ষম হবেন, যেটা আমি এতদিন করতে পেরেছি। এখনও আমার আত্মবিশ্বাসটা সেখানেই আছে এবং সে কারণেই আমি যতটা সম্ভব ক্যারিয়ারজুড়েই কঠোর পরিশ্রম করেছি। আমার কাছে সাফল্য পাওয়ার ক্ষেত্রে জরুরী হচ্ছে ভাল অনুশীলন এবং কঠোর পরিশ্রম করা। সেটাই আমার ভাল করার সুযোগটা উন্মুক্ত করে দেবে। আমি বিশ্বাস করি এখনও ভাল কিছু দেয়ার ক্ষমতা আছে আমার।’ ক্লার্ক ছাড়া অস্ট্রেলিয়ার মিডলঅর্ডারে বর্তমানে অনভিজ্ঞতার হিড়িক। তবে এডাম ভোগস বেশ ভালভাবেই ক্যারিয়ার শুরু করেছেন। সে কারণে এখন ভোগসকেই চার নম্বরে পাঠানোর চিন্তাভাবনা করছে বর্তমানে অসি টিম ম্যানেজমেন্ট। এ কারণে ট্রেন্টব্রিজে পরবর্তী টেস্টে এক ধাপ নিচে নেমে যাওয়ার চিন্তা করছেন ক্লার্ক। এছাড়া শন মার্শকেও একাদশে ঢোকানোর সুযোগ তৈরি করতে চাইছে তারা। এ বিষয়ে ক্লার্ক বলেন, ‘আমি অপেক্ষা করব এবং নির্বাচকরা কেমন একাদশ আমাকে দেন সেটা দেখব। সেটা কোনভাবেই আমার জন্য অস্বস্তিকর হবে না। পরিসংখ্যান বলছে আমি চার নম্বরের চেয়ে পাঁচ নম্বরে নেমেই বেশি ভাল করেছি। আমার মনে হয় আমাদের টপঅর্ডাররা বেশ ভাল করছেন। নম্বর কোন প্রাসঙ্গিক বিষয় নয়, দলের জন্য কোন্টা সেরা এটাই মূল বিষয়। দলের যদি প্রয়োজন পড়ে সেক্ষেত্রে আমি চার কিংবা পাঁচ যে কোন অবস্থানেই নামতে প্রস্তুত।’ স্লিপে আগে সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং দুর্দান্ত ছিলেন ক্যাচ ধরার ক্ষেত্রে। পন্টিংয়ের পর সেই অবস্থানটা নিয়েছেন ক্লার্ক। কিন্তু সেখানেও সম্প্রতি নিজেকে মেলে ধরতে পারছেন না তিনি। এবার বার্মিংহাম টেস্টে ইংলিশদের জয়ের নায়ক ইয়ান বেলের ক্যাচটা ছেড়েছেন ক্লার্ক। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘রিকি পন্টিংয়ের মতো একজন হওয়া খুব কঠিন। তিনি এক সপ্তাহের জন্য গলফ খেলার জন্য চলে যেতেন এবং পরে ক্রিকেট মাঠে নেমেই একটা সেঞ্চুরি করে ফেলতেন কোন অনুশীলন না করেই। তাঁর মতো আমি নই এবং সে কারণেই আমি গলফ খেলি না।’

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া