২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চেলসি-আর্সেনালের শিরোপার লড়াই

  • কমিউনিটি শিল্ডের লড়াইয়ের আগেই বাগ্যুদ্ধে দুই কোচ মরিনহো-ওয়েঙ্গার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা লড়াইয়ে আজ মাঠে নামছে চেলসি-আর্সেনাল। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্সেনাল। এবারও তাই শিরোপা ধরে রাখতে মরিয়া আর্সেন ওয়েঙ্গারের শিষ্যরা। কিন্তু প্রতিপক্ষ যেহেতু চেলসি। তাই স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা চিন্তিত গানার শিবির। কেননা জোশে মরিনহোর দলের বিপক্ষে পরিসংখ্যানগত দিক দিয়ে আকাশ-পাতাল ব্যবধান আর্সেন ওয়েঙ্গারের। তাছাড়া রিয়াল মাদ্রিদ থেকে চেলসির দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই উড়ছে মরিনহোর শিষ্যরা। কমিউনিটি শিল্ডে সর্বশেষ ২০০৯ সালে শিরোপা জিতেছিল ব্লুজরা। দীর্ঘ ছয় বছর পর এবার তাদের সামনে তাই শিরোপা পুনরুদ্ধারের কঠিন চ্যালেঞ্জ। যে চ্যালেঞ্জ জিততে মরিয়া জোশে মরিনহোর শিষ্যরা।

দিয়েগো কোস্তা বনাম এ্যারন র‌্যামসি। রাদামেল ফ্যালকাও বনাম থিও ওয়ালকট। থিবাও কুর্তোয়া বনাম পিওতোর চেক। প্রিমিয়ার লীগ চ্যাম্পিয়ন বনাম এফএ কাপ চ্যাম্পিয়ন। প্রিমিয়ার লীগের নতুন মৌসুম শুরুর আগেই ওয়েম্বলিতে শুরু হচ্ছে দুই জায়ান্টের লড়াই। হতে পারে এটা প্রদর্শনী টুর্নামেন্ট। তবে দুই দলের দুই কোচ জোশে মরিনহো আর আর্সেন ওয়েঙ্গারের বাগ্যুদ্ধের ফলে এই ম্যাচটাই এখন ফুটবলপ্রেমীদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। মরিনহো বনাম ওয়েঙ্গারের যুদ্ধ নতুন কিছু নয়। আর দুই ক্লাবের লড়াইয়ের আগে আর্সেনালের ফরাসী কোচকে একহাত নিলেন স্পেশ্যাল ওয়ান খ্যাত মরিনহো। চেলসির কোচের মতে, আর্সেনাল তার কাছে কোন বড় ম্যাচের মর্যাদা পাচ্ছে না। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আর্সেনাল ম্যাচটা আমার কাছে সাধারণ লড়াই। এমন নয় আর্সেনালকে হারালে আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়ব। আবার হারলেও কাঁদতে বসব না।’

এখানেই থেমে থাকেননি চেলসির এই পর্তুগীজ কোচ। আর্সেনালের কোচকে খোঁচা দিয়েছেন বিভিন্নভাবে। তার অভিযোগ, চেলসির মতো আর্সেনালও যথেষ্ট টাকা খরচ করে। তা হলে চেলসির দিকেই শুধু কেন আঙ্গুল উঠবে? তিনি বলেন, ‘আর্সেনাল কত টাকা খরচ করেছে দলবদলের বাজারে সেটা দেখার জন্য ক্যালকুলেটার নিয়ে বসা উচিত। এ্যালেক্সিস সানচেজ, মেসুত ওজিল, চেম্বার্স সবার পেছনে প্রচুর টাকা খরচ করেছে তারা।’ কিছুদিন আগেও আর্সেনাল কোচের পাশে ‘ভাগ্যবান’ তকমা বসিয়েছিলেন ‘দ্য স্পেশ্যাল ওয়ান।’ কারণ চেলসি কোচের মতে, আর্সেনাল যতই খারাপ করুক, ওয়েঙ্গারের হটসিট নিয়ে কোন টানাটানিতে পড়েন না।’ তবে মরিনহোর কটাক্ষের পাল্টা জবাব দিতে ভোলেন না ওয়েঙ্গার। তাঁর মতে, ‘কে কী বলল তাতে কিছু যায় আসে না। যখন টাকা খরচ করার তখন ঠিকই করব। যদি কেউ দেখে কত ফুটবলার আমরা এখানে তৈরি করেছি, সবাই অবাক হয়ে যাবে।’

আর্সেন ওয়েঙ্গারকে খোঁচা দেয়ার কারণও আছে। মরিনহোর বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ১৫ বার মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। কিন্তু স্পেশাল ওয়ানের ক্যারিশমার কাছে বার বারই পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছেন ওয়েঙ্গার। তাই বর্তমান চেলসির কোচের বিপক্ষে মাথা উঁচু করে তুলে দাঁড়াতে পারেননি এ ফ্রেঞ্চম্যান। এবার কি পারবেন অতীত ইতিহাসকে পরিবর্তন করতে? নাকি আবারও জয়ের হাসি হাসবেন মরিনহো। ভক্ত-অনুরাগীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার। এদিকে কমিউনিটি শিল্ডের ফাইনাল দিয়ে দলে ফিরছেন দিয়েগো কোস্তা ও গ্যারি কাহিলকে। কিন্তু আর্সেনাল পাচ্ছেন না গত মৌসুমের সেরা ফুটবলার এ্যালেক্সিস সানচেজকে। এই ম্যাচে সেরা আর্কষণ চেক। যে চেলসিকে গত এগারো বছরে ক্লাব ফুটবলের প্রায় প্রতিটা ট্রফি জিততে সাহায্য করেছেন চেক, সেই দলের বিরুদ্ধেই এবার নামবেন তিনি। চেককে নিয়ে এবার আশাবাদী ওয়েঙ্গার। তাঁর মতে, ‘চেক আসায় অবশ্যই দলে শক্তি যোগ হলো। আশা করছি ও খুব ভাল খেলবে।’ এদিকে প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতি ম্যাচে জয় পেয়েছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের দল ওয়েস্টব্রমউইচ। রিকি লাম্বার্টের জোড়া গোলে তারা ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছে ব্রিস্টল রোভার্সকে। এই মৌসুমে লিভারপুল থেকে ওয়েস্টব্রমে এসেছেন লাম্বার্ট। ক্লাবের হয়ে অভিষেকটা দারুণ হয়েছে তাঁর। অভিষেক ম্যাচে তাঁর দুই গোলের সৌজন্যেই বড় জয় পায় ওয়েস্টব্রম। এছাড়া একটি করে গোল করেছেন ক্রেইগ গার্ডনার ও ভিক্টর আনিচেবে। ৩৩ বছর বয়সী লাম্বার্টকে পেতে ব্রম খরচ করেছে ৪.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২ বছরের জন্য এই ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। গত বছর লিভারপুলের হয়ে দারুণ খেলেছেন তিনি। অলরেডদের জার্সিতে খেলেছেন মোট ৩৬টি ম্যাচ। আর এই সময়ের মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে ৩ বার বল জড়িয়েছেন তিনি। তাঁর সামনে এখন নিজেকে মেলে ধরার নতুন চ্যালেঞ্জ।