১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় বিষয়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ১ আগস্ট ॥ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস’ বিষয়ক কলেজ শিক্ষকদের বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় শনিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গাজীপুরের বোর্ডবাজারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট হলে প্রথম ব্যাচের এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার ৫ম দিনে (শনিবার) প্রফেসর এমিরিটাস ড. আনিসুজ্জামান, রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জমির এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ বক্তব্য রাখেন।

বাঙালীর রাষ্ট্র্র ভাবনা বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রফেসর এমিরিটাস ড. আনিসুজ্জামান বলেন, আবহমানকাল ধরে বাংলাদেশের সমাজ ও পরবর্তীতে বাংলাদেশ রাষ্ট্র সাংস্কৃতিক সমন্বয়বাদিতার আদর্শ ও অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দর্শনের ওপর ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে। এর ব্যত্যয় ঘটার কোনো সম্ভাবনা নেই। বাংলাদেশে জঙ্গীবাদ ও উগ্র সাম্প্রদায়িকতার কখনও কোন স্থান হবে না। একই বিষয়ে দিনের ১ম বক্তা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘আমাদের দেশে সাম্প্রদায়িকতার উদ্ভব ব্রিটিশ শাসনের ফল এবং এর পরিণতি ধর্মীয় সীমারেখায় ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগ।’ ১৯৪০ সালের লাহোর প্রস্তাব সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটি ছিল বাঙালীর স্বাধীন রাষ্ট্র চিন্তার প্রথম আনুষ্ঠানিক বহির্প্রকাশ, যা অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের মধ্য দিয়ে বাস্তবে রূপ নেয়।’ এছাড়াও একই বিষয়ে দিনের ৩য় বক্তা রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জমির বলেন, ‘১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বৈধ, গণতান্ত্রিক ও ন্যায় সঙ্গত হওয়া সত্ত্বেও মুসলিম বিশ্বের অধিকাংশ দেশ এর প্রতি সমর্থন জ্ঞাপন না করে পাকিস্তান সামরিক জান্তার পক্ষে অবস্থান নেয়। এভাবে তারা ইসলামের সত্য ও ন্যায় নীতির বিরুদ্ধে দাঁড়ায়, যা ছিল খুবই দুর্ভাগ্যজনক।’

বগুড়ায় কাজী, বর কনের দাদার কারাদ-

বাল্য বিয়ে

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ স্থানীয় প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপে এক বালিকা বধূ হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। বাল্যবিয়ে পড়ানোর কাজী, বর ও মেয়ের দাদাকে অভিযুক্ত করে ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রত্যেককে এক মাস করে কারাদ- দিয়েছে। আরেক অভিযুক্ত মেয়ের দাদিকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এই ঘটনা বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার কাবিলপুর গ্রামের। ওই গ্রামের তাজুল ইসলামের মেয়ে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী কুইন খাতুনের (১৩) সঙ্গে কাছের জোড়গোছা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে লিমন মিয়ার বিয়ে ধার্য হয় বৃহস্পতিবার। বর লিমন মিয়া ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করে। নির্দিষ্ট দিন রাতে বিয়ে পড়ানোর সময় সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খবর পেয়ে থানার অফিসার ইনচার্জকে নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। বিয়ের অনুষ্ঠানেই হাতেনাতে আটক করা হয় বিয়ে রেজিস্ট্রির কাজী হাবিবুর রহমান, বর লিমন মিয়া ও মেয়ের দাদা তারাজুল ইসলামকে। মেয়ের টিকাদান কার্ডে বয়স ১৩ বছর দেখে নিশ্চিত হওয়ার পর ইউএনও (যিনি একই সঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট) ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বর, কাজী ও মেয়ের দাদাকে এক মাসের কারাদ-াদেশ দেন। তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।

হামদর্দের ১১০তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালন

হামদর্দ ল্যাবরেজরিজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ-এর ১১০তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে শনিবার হামদর্দ ভবনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। হামদর্দের সিনিয়র পরিচালক বিপণন ও মোতাওয়াল্লি ড. হাকীম রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চীফ মোতাওয়াল্লি ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিচালক তথ্য ও গণসংযোগ কাজী মনসুর-উল-হক, পরিচালক অর্থ ও হিসাব আনিসুল হক, পরিচালক প্রশাসন অধ্যাপক হাকীম শিরী ফরহাদ, পরিচালক হামদর্দ ফাউন্ডেশন লে. কর্নেল মাহবুবুল আলম চৌধুরী (অব), পরিচালক বিক্রয় সাইফুদ্দিন মুরাদ ভূইয়া, হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের রেজিস্ট্রার লুৎফুর রহমান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এম নুরুল হুদা। আলোচনাসভার পূর্বে হামদর্দ ভবনের সামনে দেশব্যাপী সকল চিকিৎসা কেন্দ্রে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ বিতরণ আনুষ্ঠানিকভাবে একযোগে উদ্বোধন করেন হামদর্দের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চীফ মোতাওয়াল্লি ড. হাকীম মোঃ ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া। -বিজ্ঞপ্তি