২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদার গ্যাটকো দুর্নীতি মামলার রায় ৫ আগস্ট

অনলাইন রিপোর্টার ॥ গ্যাটকো দুর্নীতি মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার আবেদনের বিষয়ে আগামী ৫ আগস্ট বুধবার রায় দেবে হাইকোর্ট। সাত বছর আগে খালেদার দুটি রিট আবেদনে হাইকোর্টের দেয়া রুলের শুনানি শেষে গত ১৭ জুন বিষয়টি রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রেখেছিল বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান ও বিচারপতি আব্দুর রবের বেঞ্চ।

খালেদার আইনজীবী ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী জানান, আজ রবিবার হাইকোর্টের কার্যতালিকায় এসেছে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা গ্যাটকো মামলা। এই মামলার রায়ের জন্য আগামী ৫ আগস্ট দিন ধার্য করা হয়েছে।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বরে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেঁজগাও থানায় এই মামলা দায়ের করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী।

ওই মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেপ্তার করা হয়। জরুরি ক্ষমতা আইনে ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ২০০৮ সালের ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এই মামলায় অভিযোগপত্র দেয়া হয়।

এতে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলাটি জরুরি ক্ষমতা আইনের অন্তর্ভুক্ত করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এবং বিচারিক আদালতে মামলার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে ২০০৭ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে আলাদা দুটি রিট আবেদন করেন খালেদা জিয়া ও আরাফাত রহমান কোকো।

এর তিনদিন পর খালেদা ও কোকোর বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল দেয় হাইকোর্ট। মামলাটি জরুরি ক্ষমতা আইনের অন্তর্ভুক্ত করা কেন ‘বেআইনি ও কর্তৃত্ব বহির্ভূত’ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে। তবে হাইকোর্টের দেয়া স্থগিতাদেশ পরে আপিল বিভাগে বাতিল হয়ে যায়।

এই মামলার অন্যতম আসামিরা হলেন- বিগত চারদলীয় জোট সরকারের মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, এম. শামসুল ইসলাম, এম.কে. আনোয়ার, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মতিউর রহমান নিজামী।