১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্মার্ট কার্ডের সুফল সম্পর্কে প্রচার চালানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মার্ট ন্যাশনাল আইডেনটিটি কার্ডের (একটি জাতীয় পরিচয়পত্র) সুফল সম্পর্কে প্রচার চালাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশন শীঘ্রই এই কার্ড চালু করবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্মার্ট কার্ডের সুবিধার কথা জানতে পারলে মানুষ এটি নিতে আগ্রহী হবে। প্রধানমন্ত্রী রবিবার সকালে তাঁর কার্যালয়ে স্মার্ট কার্ডের উপস্থাপনাকালে এ কথা বলেন। অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফকালে এ কথা বলেন। স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র

প্রকল্পের মহাপরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মোঃ সালেহউদ্দিন পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে স্মার্ট কার্ডের বিভিন্ন বিষয় উপস্থাপন করেন। স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্রকে একটি সুন্দর উদ্যোগ হিসেবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী এ প্রকল্পের কাজের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন। খবর বাসসর।

শেখ হাসিনা বলেন, স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র দেশে অপরাধ ও দুর্নীতি দমনের পাশাপাশি সরকারী ও বেসরকারী খাতের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকা-ও গতিশীল করবে। প্রকল্প পরিচালক বলেন, স্মার্ট পরিচয়পত্র চালুর জন্য ৯ কোটি মানুষের ডাটাবেজ তৈরি করা হয়েছে। তিনি এর কারিগরি বিন্যাস ও ২৫ ধরনের নিরাপত্তার বিষয় উল্লেখ করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে তিন স্তরের নিরাপত্তাবিশিষ্ট এই পরিচয়পত্রের নকশা তৈরি করেছে নির্বাচন কমিশন।

জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন আইন-২০১০-এর আলোকে তৈরি এই স্মার্ট কার্ডের মেয়াদ হবে ১০ বছর। উপজেলা ও থানা পর্যায় পর্যন্ত এই প্রকল্পের কর্মকা- সম্প্রসারিত হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, এলজিআরডি ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব) তারিক আহমেদ সিদ্দিক ও নির্বাচন কমিশন সচিব সিরাজুল ইসলাম অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচিত সংবাদ