২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকার পপলারে এক টুকরো তাইওয়ান

ভিনদেশী সংস্কৃতি সম্পর্কে জানার আগ্রহ মানুষের স্বভাবজাত। ওদের জীবনযাপন, খাওয়া-দাওয়া সবকিছুতেই কৌতুহলের পারদ চূড়ান্তে থাকে। এজন্য একটুখানি অবসর পেলেই জ্ঞানের রাজ্য সমৃদ্ধ করতে ছুটে যাওয়া। তারপর রাশভারি গল্পে বন্ধুদের জানিয়ে দেয়া-তাইওয়ানের প্যাশন ফ্রুট আইসড টির স্বাদটা ভুলার নয়। তপ্ত রোদ্দুরে বেড়িয়ে এসে হিমশীতল চায়ে চুমুক দিলাম। এককথায় অসাধারণ এক অনুভূতি।

এদেশে তাইওয়ানিজ সংস্কৃতিতে খাবার পরিবেশনের ধারণাটা একেবারেই নতুন। গুলশান-২-এ অবস্থিত পপলার ক্যাফে এক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। এই ক্যাফের কুকিজ, পেস্ট্রি, কেক, ব্রেড এবং ড্রিংকস সবই তাইওয়ানিজ সংস্কৃতিকে বয়ে নিয়ে যাচ্ছে। ক্যাফেতে সময় কাটিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় অতিথিদের তাইওয়ানিজ কায়দায় স্বজোরে ‘থ্যাংকস ফর কামিং’ বলা হয়। প্রথমবার গেলে অনেকে দাঁড়িয়ে যান, তাপর হাসিমুখে বিদায় নেন। এটা তাইওয়ানের সংস্কৃতি বললেন-পারফেক্ট বেভারেজ অ্যান্ড ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের গ্রুপ ব্র্যান্ড ম্যানেজার সাব্বির আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘এখানে যেসব খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে এর সবই মেইনল্যান্ড তাওয়ানের। মূল খাদ্য উপাদান, ফ্লেভার এবং খাবার তৈরির কৌশলগুলোও তাইওয়ান থেকে আমদানিকৃত। আর এখানকার শেফদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন তাইওয়ান থেকে আসা পপলারের কর্মকর্তারা। তারা তাইওয়ানের সংস্কৃতিতে খাবার তৈরির বিষয়গুলো প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। খাবারের স্বাদ অটুট রাখতে শুরুতেই আমাদের এসব প্রস্তুতি নিতে হয়েছে। পপলারের একই ধরনের আরেকটি ক্যাফে আছে যমুনা ফিউচার পার্কে।’

তিনি আরও বলেন, ‘পপলারে হরেক রকমের কফি, চা, সোডা, শরবত ছাড়াও আছে তাইওয়ানের ড্রিংকস ফ্র্যাপাচিনোর চারটি পদ, মিল্কফিস দিয়ে তৈরি লাঞ্চ আইটেম। এছাড়া ¯œ্যাকসে আছে চিকেন চপ, ফ্রাইড চিকেন চপ, ফ্রাইড টেম্পুরা এবং ফিশবল।’

পপলার সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘তাইওয়ানের একটি জনপ্রিয় খাবারের ব্র্যান্ড পপলার। বাঙালীদের ভিন্নধর্মী খাবারের স্বাদ দিতে ঢাকায় পপলারের শোরুম খোলা হয়েছে।’

নিজেদের শোরুমের আরেকটি বিশেষত্ব সম্পর্কে তিনি বলেন, আমরা হোম ডেলিভারি করি। কেক, কুকিজ, পেস্ট্রি পৌঁছে দেয়ার জন্য আমরা একটি চমৎকার গিফটবক্স ব্যবহার করি। বাজেট অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন সাইজের গিফটবক্স আছে। অনেক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান কাউকে কেক কিংবা পেস্ট্রি পাঠানোর জন্য আমাদের অর্ডার করেন। আমরা যথাসময়ে তা পৌঁছে দিই। কেউ কেউ ফোন করেন, কেউবা ফেসবুকে মেসেজের মাধ্যমে অর্ডার করেন। ফোন নম্বর-০১৬৭৮-০১৩৬৩৬।

যাপিত ডেস্ক