২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হাতিরঝিলে ৬ তলার বেশি উঁচু ভবনের নকশা দেবে না রাজউক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর হাতিরঝিল প্রকল্প এলাকার সন্নিকটে প্রথম সারিতে অবস্থিত সকল ভবন ৬ তলার হতে হবে। নতুন করে প্রথম সারিতে কোন ভবনই ৬ তলার বেশি উঁচু নির্মাণে নকশা অনুমোদন করবে না রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। তবে পরের সারিতে ও পর্যায়ক্রমে দূরত্ব অনুসারে ভবন নির্মাণে উচ্চতা বাড়ানো যাবে। এছাড়া হাতিরঝিল প্রকল্প এলাকাটি রাজধানীর অন্য যে কোন এলাকার চেয়ে সংরক্ষিত এলাকা বিধায় নতুন করে কোন বাড়ির রাস্তা হাতিরঝিলে এসে সংযুক্ত হতে পারবে না। পাশাপাশি পুরো হাতিরঝিল প্রকল্পের সীমানায় পর্যায়ক্রমে দেয়াল নির্মাণের মাধ্যমে তা বন্ধ করে দেয়া হবে। হাতিরঝিলের সন্নিবেশ এলাকার সৌন্দর্য রক্ষায় বিশেষ উদ্যোগ হিসেবে সুপারিশ করেছে রাজউক। রবিবার হাতিরঝিলের পরিকল্পিত সৌন্দর্য রক্ষায় গঠিত সংস্থাটির চেয়ারম্যানকে আহ্বায়ক করা ২১ সদস্যের কমিটি হাতিরঝিল এলাকাকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে এসব সুপারিশ করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। হাতিরঝিলের পরিকল্পিত উন্নয়ন নিয়ে তৃতীয়বারের মতো করা সভার গৃহীত উদ্যোগসমূহ বাস্তবায়নে উক্ত কমিটির পক্ষ থেকে রাজউক গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের কাছে অতিদ্রুত সুপারিশ আকারে পাঠাবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত হয়।

সভাসূত্র জানায়, এর আগে রাজধানীর ফুসফুস হিসেবে খ্যাত হাতিরঝিলের আশপাশে ৩০০ মিটার এলাকার মধ্যে কোন প্রকার উঁচু ভবন নির্মাণ করা যাবে না বলে একটি সিদ্ধান্ত নেয় রাজউক। এর ফলে উক্ত এলাকায় কোন ভবন নির্মাণের নকশা অনুমোদন দেয়নি রাজউক। নতুন করে নেয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ নিষেধাজ্ঞা আর থাকেব না। কারণ হিসেবে জানা গেছে, হাতিরঝিল এলাকায় হাজার হাজার বাড়ি অবস্থিত হওয়ায় নতুন করে ৩০০ মিটার এলাকায় উঁচু ভবন নির্মাণে নকশা অনুমোদন না দেয়া বাস্তবতার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। এতে করে উক্ত বিশাল এলাকায় প্রয়োজন থাকা সত্ত্বেও কোন প্রকার উঁচু ভবন নির্মাণ করতে পারছে না এলাকাবাসী। নাগরিকদের ভোগান্তি লাগব করতে হাতিরঝিলের সৌন্দর্য সুরক্ষায় কমিটি এ সুপারিশ করেছে বলে জানা গেছে।

প্রকল্পে নতুন কোন রাস্তা যোগ হওয়া নিয়ে নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে জানা গেছে, সংরক্ষিত এলাকা বিধায় হাতিরঝিল এলাকায় কোন যানবাহনই কম গতিতে চলে না। নতুন করে প্রকল্প এলাকায় ভবন থেকে রাস্তা তৈরির অনুমোদন দিলে অধিক গতির যানবাহনের সঙ্গে সংঘর্ষের সূত্রপাতের পাশাপাশি প্রতিদিন নানা দুর্ঘটনা ঘটবে। এ থেকে রক্ষা পেতে এ সুপারিশ করা হয়েছে। তবে পূর্বে দেয়া সকল রাস্তার অনুমোদন বহাল থাকবে। এছাড়া বড় আবাসিক এলাকার ক্ষেত্রে রাস্তার সংযোগ প্রদানে শর্ত শিথিল করা হতে পারে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজউক চেয়ারম্যান জিএম জয়নাল আবেদিন জনকণ্ঠকে বলেন, রাজধানীর ফুসফুস হাতিরঝিলকে উন্নত বিশ্বের ন্যায় পরিকল্পিত করে গড়ে তুলতে ও সৌন্দর্য সুরক্ষায় ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এসব সুপারিশ করা হয়েছে। আমরা এসব সুপারিশ মন্ত্রণালয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য পাঠাবো। মন্ত্রণালয়ে এসব সুপারিশ বাস্তবায়নে বা সিদ্ধান্ত গ্রহণে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি রয়েছে। কমিটি পর্যালোচনা সাপেক্ষে অনুমোদন দিলে এর বাস্তবায়ন কাজ শুরু করা হবে। রাজউক চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেনÑ মেজর জেনারেল মাসুদ সাঈদ, মেজর শাকিল, মেজর খিজির আহমেদ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব, ওয়াসা ও এলজিআরডির হাতিরঝিলের জন্য নিযুক্ত দুই প্রকল্প পরিচালক, রাজউকের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদসহ কমিটির অন্য সদস্যবৃন্দ।

নির্বাচিত সংবাদ