২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নারায়ণগঞ্জ থেকে আরও ২ আসামি গ্রেফতার ॥ মাগুরায় দুইজন রিমান্ডে

  • শিশুটির অবস্থা ভাল

স্টাফ রিপোটার ॥ মাগুরায় মাতৃ জঠরে শিশু গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় প্রশাসন কঠোর অবস্থান নিয়েছে। দলমত নির্বিশেষে প্রভাবশালী আসামিদের একের পর এক গ্রেফতার করা হচ্ছে। জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি সুমন সেনকে রাজধানীতে গ্রেফতারের পর সোমবার নারায়ণগঞ্জ থেকে আরও দুজনকে আটক করা হয়। তারা হলেন- সাগর ও বাপ্পী। এদিকে গুলিবিদ্ধ শিশুটির অবস্থা ভালর দিকে বলে জানা গেছে।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, বর্তমান সরকারের প্রশাসন দল দেখে মুখ দেখে কাজ করছে না। মাগুরার ঘটনায় যারাই দায়ী তাদেরই আইনের আওতায় আনা হবে।

মাগুরা থেকে সংবাদদাতা জানান, মাতৃগর্ভে নবজাতক ও মা নাজমা বেগম গুলিবিদ্ধের ঘটনায় আরও দু আসামি সাগর ও বাপ্পীকে সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে

গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই নিয়ে মোট ১৬ আসামির মধ্যে ৬ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ ।

রবিবার এই মামলার ১নং আসামি সুমন সেনকে র‌্যাব ঢাকার কল্যাণপুর থেকে এবং ১৩নং আসামি নজরুল ইসলামকে পুলিশ মাগুরার ওয়াপদা নামকস্থান থেকে গ্রেফতার করে। এই মামলার ৫নং আসামি সুমন ও ১৪ নং আসামি আব্দুস সোহবানকে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। তাদের ২৬ জুলাই গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

মাগুরার পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ জানান, দু’ আসামি সাগর ও বাপ্পীকে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই নিয়ে মোট ৬ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এছাড়া এ মামলার দু’ আসামি আব্দুস সোহবান ও সুমনের একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। সোমবার দুপুরে এই মামলার ৫নং আসামি সুমন ও ১৪ নং আসামি আব্দুস সোহবানের রিমান্ডের আবেদনের শুনানি মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারাহ মামুনের আদালতে অনুষ্ঠিত হয়। আদালত একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। দুজনের ৭ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল।

মাগুরার পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ আরও জানান, অন্য আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এ জন্য দুটি টিম কাজ করছে।

উল্লেখ্য, ২৩ জুলাই সংঘর্ষকালে মাতৃগর্ভে নবজাতক ও মা নাজমা বেগম গুলিবিদ্ধ ও আব্দুল মোমিন নামে একজন নিহতের ঘটনায় নিহত আব্দুল মোমিনের ছেলে রুবেল মিয়া বাদী হয়ে এ হত্যাকা-ে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৬ জনকে আসামি করে মাগুরা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

শিশুটির খোঁজখবর নিতে ঢাকা মেডিক্যালে তথ্যমন্ত্রী ॥ এদিকে মাগুরার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ রয়েছে মাগুরায় সন্ত্রাসী হামলায় মাতৃগর্ভে গুলিবিদ্ধ নবজাতকের ওপর যারা গুলি চালিয়েছে তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। যারা গুলি চালিয়েছে তাদের মধ্যে মূল হোতাকে রাজধানীর কল্যাণপুর থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ বিষয়ে কোন ছাড় হবে না, সবাইকেই ধরা হবে। কারণ দল দেখে-মুখ দেখে প্রশাসন কাজ করে না। তাদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা হবে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শিশুটির শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিতে এসে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

এ বিষয়ে চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আগের চেয়ে শিশুটির অবস্থার উন্নতি হয়েছে। খানিকটা শঙ্কামুক্ত বলা চলে।

এ সময় তিনি বলেন, দল দেখে বা মুখ দেখে প্রশাসন কাজ করছে না। অপরাধ যেই করুক; মাফ পাবে না।

হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মিজানুর রহমান, নবজাতক ওয়ার্ডের প্রধান অধ্যাপক আবিদ হোসেন মোল্লা এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

এর আগে সোমবার সকালে অধ্যাপক আবিদ হোসেন মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, শিশুটি এখন ভালর দিকে। সোমবার সকালেই তার মা প্রথম শিশুটিকে দেখেছেন। এখনও সরাসরি দুধ খাওয়ানোর অনুমতি দেয়া হয়নি। তবে মার দুধ সংগ্রহ করে খাওয়ানো হচ্ছে।

নির্বাচিত সংবাদ