১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্যান্সার রুখতে এ্যাঞ্জেলিনা জোলির পথে

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ হলিউডের শীর্ষ নায়িকাদের অন্যতম এ্যাঞ্জেলিনা জোলি ক্যান্সারের ঝুঁকি এড়াতে যা করেছিলেন, সেই পথ এখন অনেকেই বেছে নিচ্ছেন। বিশেষ করে এর প্রভাব পড়েছে ভারতে। কিন্তু সেটা কতটা যুক্তিসম্মত, তা নিয়ে দ্বিমত রয়েছে চিকিৎসক মহলে। এ্যাঞ্জেলিনা জোলি ক্যান্সার এড়াতে শুধু স্তন নয়, বাদ দিয়েছেন নিজের ডিম্বাশয় এবং ফ্যালোপিয়ান টিউবও। স্তন ক্যান্সার ঘটাতে পারে এমন জিন (বিআরসিএ-১) খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল তাঁর শরীরে। স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে এভাবে আগাম ডিম্বাশয় কেটে বাদ দেয়ার প্রবণতা শুরু হয়েছে কলকাতাতেও। কিন্তু স্তন ক্যান্সারে কেন ডিম্বাশয় বাদ দিতে হবে? কলকাতার চিকিৎসকদের একটি অংশের দাবি, স্তন ক্যানাসারের জন্য ইস্ট্রোজেন হরমোন এক ধরনের অনুঘটক। অর্থাৎ ইস্ট্রোজেনের প্রভাবে স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা বাড়ে। সেই ক্ষেত্রে ইস্ট্রোজেনের উৎস ডিম্বাশয় দুটি কেটে বাদ দিলেই (যাকে উফারেক্টমি বলা হয়) ঝামেলা চুকে যায়। তবে ক্যান্সার প্রতিরোধে এই পদ্ধতি কতটা কার্যকর তা নিয়ে চিকিৎকদের মধ্যে বিতর্ক দানা বেঁধেছে। ক্যান্সার চিকিৎসকদেরই অন্য অংশ এর বিরোধী। তাঁরা বলছেন, ডিম্বাশয় বাদ দেয়ার কোন অর্থই হয় না। একটু সতর্কতা আর নিয়মিত পরীক্ষাতেই স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করা যায়। ভারতের শহরাঞ্চলে মহিলারা যত রকম ক্যান্সারে আক্রান্ত হন, তার মধ্যে স্তন ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি। পশ্চিমবঙ্গে প্রতিবছর নতুন করে ১৪ হাজার মহিলার দেহে এই ক্যান্সার পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু কলকাতার ক্যান্সার বিশেষজ্ঞদের শতকরা ৯৯ ভাগই মনে করেন, স্তন কেটে ক্যান্সার আটকানো যায় না। যদি ক্যান্সার-আক্রান্ত কোষকে উদ্দীপ্ত করার অন্য উপকরণ শরীরে মজুত থাকে তা হলে কাটা স্তনের জায়গার ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র টিস্যু থেকেও ক্যান্সার হতে পারে। কলকাতার বেশকিছু ক্যান্সার চিকিৎসক বলছেন, উফারেক্টমি করে দুটি ডিম্বাশয় বাদ দিলে মহিলাদের স্তন ক্যান্সারের (বিশেষ করে যাদের শরীরে বিআরসিএ-১ বা ২ জিন রয়েছে) সম্ভাবনা অনেক কমানো যায়। চিকিৎসকদের হিসাব মতে কলকাতায় গত এক বছরে অন্তত ৯ জন মহিলা উফারেক্টমি করেছেন। খড়দহের এক মহিলা সম্প্রতি তাঁর ডিম্বাশয় দুটি বাদ দিয়েছেন। ওই মহিলার দেহে এ্যাঞ্জেলিনার মতোই বিআরসিএ-১ জিন মিলেছিল। তাঁর মায়েরও স্তন ক্যান্সার হয়েছিল। ভবিষ্যতে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি এড়াতে গত ৬ জুলাই পার্ক স্ট্রিটের বেসরকারী হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করে নিজের ডিম্বাশয় বাদ দিয়েছেন খড়দহের ৪৯ বছরের ওই বাসিন্দা। তিনি জানাচ্ছেন, অস্ত্রোপচারের পরে এখনও পর্যন্ত কোন শারীরিক সমস্যায় পড়তে হয়নি।